সমকাল


সমকাল ঢাকা থেকে প্রকাশিত একটি প্রগতিশীল সাহিত্য সাময়িকী।  সিকান্দার আবু জাফর-এর সম্পাদনায় এর প্রথম সংখ্যা প্রকাশিত হয় ১৩৬৪ বঙ্গাব্দের (১৯৫৭) ভাদ্র মাসে। এ সংখ্যার লেখকবৃন্দ ছিলেন কবিতায় শামসুর রাহমান ও আবুল হোসেন, গল্পে  শওকত ওসমান ও আলাউদ্দিন আল আজাদ, প্রবন্ধ রচনায় মোহাম্মদ ওয়ালিউল্লাহ, এ.কে নাজমুল করিম, কাজী দীন মুহম্মদ, আনিসুজ্জামান,  কামরুল হাসানআবদুল্লাহ আল-মুতী শরফুদ্দিন ও  কাজী মোতাহার হোসেন এবং পুস্তক সমালোচনায়  আবদুল গনি হাজারী ও চাকলাদার মাহবুব আলম।

দ্বিতীয় বর্ষ পর্যন্ত পত্রিকাটির সহযোগী সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন  হাসান হাফিজুর রহমান। তৃতীয় বর্ষ প্রথম সংখ্যা থেকে সিকান্দার আবু জাফরের একক সম্পাদনায় পত্রিকাটি প্রকাশিত হতে থাকে এবং সপ্তম বর্ষ থেকে এটি অনিয়মিত হয়ে পড়ে। ১৯৬১ সালে ‘রবীন্দ্র জন্ম-শতবার্ষিকী সংখ্যা’ হিসেবে সমকালের একটি বিশেষ সংখ্যা এবং অষ্টম বর্ষের নবম-দ্বাদশ সংখ্যাটি (পৌষ-চৈত্র, ১৩৭১) বিশেষ ‘কবিতা সংখ্যা’ হিসেবে প্রকাশিত হয়। এতে কবিতাবিষয়ক আটটি দীর্ঘ প্রবন্ধ এবং পূর্ববাংলার ৫৭জন কবির ১৯১টি কবিতা মুদ্রিত হয়েছিল। ত্রয়োদশ বর্ষে পত্রিকাটির মাত্র তিনটি সংখ্যা প্রকাশিত হয়। মাসিক সমকাল এভাবেই ১৯৭০ সালের আগস্ট মাস পর্যন্ত তার অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখে।

সমকালের দুটি সংখ্যা (বৈশাখ-শ্রাবণ ১৩৭২/১৯৬৫ এবং ভাদ্র-অগ্রহায়ণ ১৩৭২/১৯৬৫) সামরিক শাসনামলে বাজেয়াপ্ত হয়। স্বাধীনতার পর  হাসান হাফিজুর রহমান-এর সম্পাদনায় ‘সিকান্দার আবু জাফর স্মৃতি সংখ্যা’ হিসেবে নব পর্যায়ে এর অষ্টাদশ বর্ষ প্রথম সংখ্যা, মাঘ ১৩৮২/১৯৭৫ প্রকাশিত হয়। পত্রিকার সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি ছিলেন  আবু জাফর শামসুদ্দীন। এ পর্বে সমকাল অনিয়মিতভাবে সাড়ে তিন  বছর চলেছিল।

সমকাল একটি উন্নতমানের রুচিশীল পত্রিকারূপে গণ্য হয়। এর প্রচ্ছদ-শিল্পীরা ছিলেন  জয়নুল আবেদিন, কামরুল হাসান, দেবব্রত মুখোপাধ্যায়, কাইয়ুম চৌধুরী, সৈয়দ জাহাঙ্গীর, রশীদ চৌধুরী, আমিনুল ইসলাম, দেবদাস চক্রবর্তী, মুকতাদির ও নিতুন কুন্ডুর মতো খ্যাতিমান শিল্পীরা।  [খোন্দকার সিরাজুল ইসলাম]