নায়েব


নায়েব ফারসি শব্দ, যার অর্থ প্রতিনিধি। কোনো কর্মকর্তা যিনি অন্য কোনো কর্মকর্তার স্থলাভিষিক্ত হয়ে কাজ করেন, অথবা যিনি কারও অনুপস্থিতিতে বা পরিবর্তে কাজ করার জন্য নিয়োজিত হন, তিনিই নায়েব। মুগল আমলের শেষদিকে কোনো অনুপস্থিত কর্মকর্তার স্থলে দায়িত্ব পালন করার জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নায়েব বলা হতো। মুগল প্রশাসনের অধীনে সুবাহদারগণও কখনো কখনো নায়েবের দায়িত্ব পালন করতেন। কোনো নাবালক যুবরাজ সুবাহদার হিসেবে মনোনীত হলে, সে ক্ষেত্রে একজন নায়েব তার স্থলে সুবাহদারের দায়িত্ব পালন করতেন এবং যুবরাজ শিক্ষানবিশের পর্যায়ে থাকতেন। মুগল সুবাহদারগণ সবসময় সুনির্দিষ্ট দায়িত্ব সহকারে নিয়োগপ্রাপ্ত হতেন। কিন্তু একজন নায়েব কোনো সুবাদারের প্রতিরূপ হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত হতেন।

বাংলায়, বিশেষ করে আঠারো শতকের প্রথম থেকে কোনো অনুপস্থিত সুবাহদার বা নাজিমের পক্ষে কর্ম পরিচালনার জন্য নিযুক্ত ব্যক্তি নায়েব বলে অভিহিত হতেন। নায়েব থেকে নওয়াব শব্দের উৎপত্তি। মুর্শিদকুলী খান (১৭১৬-১৭২৭) ও তাঁর পরবর্তীকালে বাংলায় প্রত্যেক সুবাহদারের নামের পূর্বে নওয়াব শব্দটি যুক্ত হতে থাকে।  [আবদুল করিম]