ওরিয়েন্টাল সেমিনারি


ওরিয়েন্টাল সেমিনারি (Oriental Seminary)  একটি ইংরেজি স্কুল। প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন গৌরমোহন আঢ্য (১৮০৫-১৮৪৫) কলকাতার গরানহাটায় ১৮২৯ সালে ১ মার্চ এটি প্রতিষ্ঠা করেন।

ওরিয়েন্টাল সেমিনারি একটি ধর্মীয় সামাজিক প্রেক্ষাপটে প্রতিষ্ঠিত হয়। হিন্দু কলেজের ছাত্ররা পাশ্চাত্য শিক্ষা গ্রহণ করে অনেকেই নাস্তিক হয়ে যেত। অনেকে গ্রহণ করত খ্রিস্টধর্ম। ইংরেজি শিক্ষার একটা ভিন্ন প্রভাবের ফলে তারা দেশিয় সমাজ ও সংস্কৃতির প্রতি বিদ্বিষ্ট হয়ে ওঠে ও তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করে। এ অস্বাভাবিকত্ব লক্ষ করে এবং একই পরিণতির কথা ভেবে, অভিভাবকেরা তাঁদের সন্তানদের খ্রিস্টান মিশনারিদের স্কুলে পাঠাতে চাইতেন না। ওরিয়েন্টাল সেমিনারি এরকম পরিপ্রেক্ষিতের মধ্যে প্রতিষ্ঠিত হয়। এ অবস্থায় এ সেমিনারি প্রতিশ্রুতি দেয় যে, এখানে পড়ে কেউই নাস্তিক কিংবা ধর্মান্তরিত হবে না। ওরিয়েন্টাল সেমিনারির এ চ্যালেঞ্জ রক্ষিত হয়েছিল। এর একটা প্রধান কারণ ছিল এ সেমিনারি ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি থেকে কোনোরূপ আর্থিক সহায়তা গ্রহণ করেনি। ফলে খ্রিস্টান মিশনারিদের প্রভাব থেকে এখানকার শিক্ষার্থীরা মুক্ত ছিল। কিন্তু ওরিয়েন্টাল সেমিনারি প্রাচ্যের সামাজিক সংরক্ষণ নীতি লঙ্ঘন না করেও পাশ্চাত্যের আধুনিক শিক্ষা গ্রহণ করে। এর মূলে ছিল শিক্ষক-নিয়োগ পদ্ধতির সফলতা। শিক্ষক নিযুক্তির ব্যাপারে ওরিয়েন্টাল সেমিনারি দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিল। আদর্শ শিক্ষকের খোঁজে গৌরমোহন আঢ্য নানা অঞ্চলে যেতেন। এরকম একজন শিক্ষকের খোঁজে তিনি শ্রীরামপুরে গিয়েছিলে সেখান থেকে কলকাতায় ফেরার পথে নৌকাডুবিতে তিনি মারা যান।

ওরিয়েন্টাল সেমিনারি স্কুলের নিম্ন ও উচ্চ শ্রেণিতে পড়াতেন জর্জ অ্যাডওর্য়াড ব্যালিস, আলেকজান্ডার টারনবল, ডেভিড লেস্টার রিচার্ডসন, ফ্রেডরিক পেনি,  মি. জে.বি. স্মিথ, হার্ডম্যান জেফ্রয় প্রমুখ। নিম্নশ্রেণীতে ইংরেজি ছাড়াও গ্রিক, ল্যাটিন, জার্মান, ফরাসি, হিব্রু, স্পেনিশ, লাতিন প্রভৃতি ভাষা শেখানো হতো। বাছাইকৃত বাঙালি শিক্ষকদের মধ্যে ছিলেন কালীকিঙ্কর পালিত, প্যারিমোহন বন্দ্যোপাধ্যায়, গুরুচরণ দত্ত, কৈলাসচন্দ্র বসু, ঈশ্বরচন্দ্র নন্দী, বেণীমাধব দে, অমৃতলাল বসু প্রমুখ।

ওরিয়েন্টাল সেমিনারির ছাত্র ছিলেন  অক্ষয়কুমার দত্ত, শম্ভুনাথ পন্ডিত, কৃষ্ণদাস পাল,  গিরিশচন্দ্র ঘোষ, কৈলাসচন্দ্র বসু,  চন্দ্রনাথ বসুউমেশচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়, গুরুদাস বন্দ্যোপাধ্যায়, অমৃতলাল বসুরবীন্দ্রনাথ ঠাকুর প্রমুখ। পরবর্তীকালে এঁরা নিজ নিজ ক্ষেত্রে যশস্বী হয়েছেন। ওরিয়েন্টাল সেমিনারি ইংরেজি বিদ্যালয় হিসেবে খ্যাত হলেও ১৮৩৯ সালের ২৭ এপ্রিল থেকে বিদ্যালয়টিতে ইংরেজি ভাষার পাশাপাশি বাংলা ভাষাতেও শিক্ষাদান আরম্ভ হয়।  [মুহম্মদ সাইফুল ইসলাম]