ইসহাক, মওলানা মুহাম্মদ


ইসহাক, মওলানা মুহাম্মদ (১৮৮৩-১৯৩৮)  সুফি ও আলিম। জন্মস্থান ফেনী। তিনি স্থানীয় প্রাথমিক শিক্ষাশেষে কুমিল্লার এক মাদ্রাসায় আলেম ক্লাসে ভর্তি হন এবং সেখান থেকে সমুদ্র পথে মক্কা যান এবং সাওলাতিয়্যা মাদ্রাসায় শায়খুদ-দালায়িল আবদুল হক মুহাজির মক্কীর পোষ্যপুত্র হিসেবে তাঁর সাহচর্যে এগারো বছর  ইসলাম ধর্ম ও আরবি ভাষা চর্চা করেন এবং আরও কয়েক বছর সুফিধারায় কঠোর অনুশীলন করে খিলাফত লাভ করেন। স্বদেশে ফিরেও তিনি বহু বছর সুফি সাধনায় নিয়োজিত ছিলেন।

ক্রমে মুহাম্মদ ইসহাকের মধ্যে কেরামত প্রকাশ পায় এবং মানুষ হেদায়েতের জন্য তাঁর নিকট আসতে থাকে। তিনি নিজেও কুমিল্লা, বরিশাল, নোয়াখালী, হাতিয়া, সন্দ্বীপ প্রভৃতি অঞ্চল ভ্রমণ করেন এবং বহু লোককে হেদায়েত ও মুরিদ করেন। পরবর্তীকালে জৈনপুরের মওলানা আবদুর রবের (মওলানা কেরামত আলীর দৌহিত্র) নিকট বায়আত হলে তাঁর সুফি ধ্যান-ধারণা ও অনুশীলনের ওপর জৈনপুরীদের প্রভাব পড়ে। উর্দু ভাষায় রচিত তাঁহর তালীমে হাককানী ওয়া কুয়ূদে ইসহাকী গ্রন্থে সুফিবাদের বিভিন্ন সমস্যা এবং জিকির ও ধ্যানের পদ্ধতির সহজ ব্যাখ্যা আছে।

মওলানা ইসহাক সমাজসেবায় আগ্রহী ছিলেন। ১৯৩৬ সালে তিনি বাড়ির নিকট একটি এতিমখানা স্থাপন করেন এবং সব স্থাবর সম্পত্তি এতে দান করেন; তাঁর নামানুসারে এর নাম হয় ‘ইসহাকিয়া এতিমখানা’। তিনি ঈদগাহ, মসজিদ ও মাদ্রাসা স্থাপনেও সাহায্য করেন। তিনি সক্রিয় রাজনীতি থেকে বিরত থাকলেও উপমাহাদেশের জাম‘ইয়াত ওলামা-ই হিন্দের স্বাধীনতা আন্দোলন সমর্থন করেন ও মুরিদগণকে তা সমর্থন করতে নির্দেশ দেন।  [এম.এ কাসেম]