পল্লবী থানা

Mukbil (আলোচনা | অবদান) কর্তৃক ১২:১৯, ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ তারিখে সংশোধিত সংস্করণ
(পরিবর্তন) ← পূর্বের সংস্করণ | সর্বশেষ সংস্করণ (পরিবর্তন) | পরবর্তী সংস্করণ → (পরিবর্তন)

পল্লবী থানা (ঢাকা মেট্রোপলিটন)  আয়তন: ২৫.২৮ বর্গ কিমি। অবস্থান: ২৩°৪৮´ থেকে ২৩°৫২´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৯০°২০´ থেকে ৯০°২৩´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ। সীমানা: উত্তরে তুরাগ এবং উত্তরা থানা, দক্ষিণে মিরপুর ও শাহ আলী থানা, পূর্বে বিমানবন্দর, ক্যান্টনমেন্ট ও কাফরুল থানা এবং পশ্চিমে সাভার উপজেলা।

জনসংখ্যা ৪১২২১৭; পুরুষ ২২১৪১১, মহিলা ১৯০৮০৬। মুসলিম ৪০৬০১৫, হিন্দু ৫৭৮৪, বৌদ্ধ ২৯১, খ্রিস্টান ৬৪ এবং অন্যান্য ৬৩।

জলাশয় প্রধান নদী: তুরাগ।

প্রশাসন ১৯৯৫ সালের ১৫ মার্চ পল্লবী থানা গঠিত হয়।

থানা
ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন মহল্লা জনসংখ্যা ঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিমি) শিক্ষার হার (%)
শহর গ্রাম শহর গ্রাম
২+৪ (আংশিক) ৩৮ ৪০৬৬৪৩ ২১২৯ ১৬৩০৬ ৬৩.৮৩ ৬২.৩৪
ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন
ওয়ার্ড নম্বর ও ইউনিয়ন আয়তন (বর্গ কিমি) লোকসংখ্যা শিক্ষার হার (%)
পুরুষ মহিলা
ওয়ার্ড  নং ২    ৩.৫৫ ৬৭৯৭২ ৫৯৮৭৯ ৬৫.২৯
ওয়ার্ড  নং ৩ (আংশিক)     ১.৬৬ ২৭৮৮৬ ২৪৮৬০ ৫৮.৫৮
ওয়ার্ড  নং ৫  ২.১৯ ৪৬৫০৭ ৪০৬০৮ ৫৬.১৮
ওয়ার্ড  নং ৬ (আংশিক)    ৪.৭৪ ৭০৯২৮ ৫৮১২৭ ৭১.১০
ওয়ার্ড  নং ১৫ (আংশিক)  ৪.৭৮ ৫১৪১ ৪৭৪১ ৬৮.০১
হরিরামপুর (আংশিক)   ৮.৩৬ ২৯৭৭ ২৫৯১ ৬২.৩৪

সূত্র আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।

পল্লবী থানা

মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচিহ্ন মিরপুর ১২ নং ক্যান্টনমেন্ট এলাকা, মুসলিম বাজার বধ্যভূমি, নূরানী মসজিদ সংলগ্ন গণকবর।

ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান বড় মসজিদ, লালমাঠ ঈদগাহ মসজিদ।

শিক্ষার হার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড় হার ৬৪.১০%; পুরুষ ৬৯.২২%, মহিলা ৫৮.৯৮%। কলেজ ৭, মাধ্যমিক বিদ্যালয় ১৮, প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩৬, মাদ্রাসা ১২। উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান: মিরপুর গার্লস আইডিয়াল ল্যাবরেটরি ইনস্টিটিউট, সামরিক বাহিনী কমান্ড ও বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ প্রফেশনালস্, মিলিটারি ইনস্টিটিউট অফ সাইন্স এন্ড টেকনোলোজি, স্টাফ কলেজ, শহীদ জিয়া স্মৃতি মহিলা মহাবিদ্যালয়, পল্লবী মডেল স্কুল এন্ড কলেজ, শহীদ আবু তালেব উচ্চ বিদ্যালয়, মিরপুর বাংলা উচ্চ বিদ্যালয়, আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়, এমডিসি স্কুল, গ্রীন ফিল্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, চেরী ব্লোজমস ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, সেনপাড়া পর্বতা প্রাথমিক বিদ্যালয়, রূপনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, প্রিপারেটরী গ্রামার স্কুল।

সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান  ক্লাব, সাহিত্য সংগঠন, কমিউনিটি সেন্টার, সিনেমা হল, খেলার মাঠ।

গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা প্রশিকার হেড অফিস।

জনগোষ্ঠীর আয়ের প্রধান উৎস কৃষি ১.৪৪%, অকৃষি শ্রমিক ১.৬৯%, শিল্প ৯.৯৮%, ব্যবসা ২২.৫৪%, পরিবহণ ও যোগাযোগ ৮.৯৫%, চাকরি ৩৫.৪৬%, নির্মাণ ৩.৬৪%, ধর্মীয় সেবা ০.১৪%, রেন্ট অ্যান্ড রেমিটেন্স ২.৭৫% এবং অন্যান্য ১৩.৪১%।

কৃষিভূমির মালিকানা ভূমিমালিক ৪৫.২৪%, ভূমিহীন ৫৪.৭৬%।

প্রধান কৃষি ফসল ধান, শাকসবজি।

বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় ফসলাদি পাট, আখ, ডাল।

প্রধান ফল-ফলাদি আম, নারিকেল।

যোগাযোগ বিশেষত্ব মোট সড়ক  ৮৪ কিমি।

বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় সনাতন বাহন পাল্কি, গরু ও ঘোড়ার গাড়ি।

শিল্প ও কলকারখানা টেক্সটাইল ফ্যাক্টরি, কেমিক্যাল ফ্যাক্টরি, গার্মেন্টস ফ্যাক্টরি, ডাইং ফ্যাক্টরি।

কুটিরশিল্প তাঁতশিল্প (জামদানি), মৃৎশিল্প, হস্তশিল্প, বাঁশের কাজ, বেতের কাজ।

বাজার ও শপিং সেন্টার  মিরপুর বেনারশী পল্লী, পূরবী সুপার মার্কেট, সিটি কর্পোরেশন মার্কেট ও অনিক প্লাজা ভবন উল্লেখযোগ্য।

প্রধান রপ্তানিদ্রব্য তৈরি পোশাক, জামদানি ও কাতান শাড়ি।

বিদ্যুৎ ব্যবহার এ থানার সবক’টি ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন বিদ্যুতায়ন কর্মসূচির আওতাধীন। তবে ৯৭.৭৭% পরিবারের বিদ্যুৎ ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে।

পানীয়জলের উৎস নলকূপ ১৫.০১%, পুকুর ০.১১%, ট্যাপ ৮২.০৮% এবং অন্যান্য ২.৮০%।

স্যানিটেশন ব্যবস্থা ৮৪.২৮% পরিবার স্বাস্থ্যকর এবং ১৪.০৭% পরিবার অস্বাস্থ্যকর ল্যাট্রিন ব্যবহার করে। ১.৬৫% পরিবারের  কোনো ল্যাট্রিন সুবিধা নেই।

স্বাস্থ্যকেন্দ্র হাসপাতাল ২, ক্লিনিক ৪।

এনজিও ব্র্যাক, প্রশিকা, আশা।  [মো. তুহীন মোল্লা]

তথ্যসূত্র আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।