ইলিয়ট, স্যার চার্লস আলফ্রেড

NasirkhanBot (আলোচনা | অবদান) কর্তৃক ০০:৫৮, ৫ মে ২০১৪ তারিখে সংশোধিত সংস্করণ (Added Ennglish article link)
(পরিবর্তন) ← পূর্বের সংস্করণ | সর্বশেষ সংস্করণ (পরিবর্তন) | পরবর্তী সংস্করণ → (পরিবর্তন)

ইলিয়ট, স্যার চার্লস আলফ্রেড (১৮৩৫-১৯১১)  একজন উচ্চপদস্থ বেসামরিক কর্মকর্তা এবং বাংলার লেফটেন্যান্ট গভর্নর (১৮৯০-১৮৯৫)। কেমব্রিজের হ্যারো এবং ট্রিনিটি কলেজে তিনি শিক্ষা গ্রহণ করেন। ১৮৫৬ সালের প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে স্যার চার্লস আলফ্রেড ইলিয়ট বেঙ্গল সিভিল সার্ভিস-এ যোগদান করেছিলেন। ১৮৯০ সালের ১৮ ডিসেম্বর বাংলার লেফটেন্যান্ট গভর্নর হিসেবে যোগদানের পূর্বে তিনি অনেক উচ্চপদে অধিষ্ঠিত ছিলেন। ১৮৭৮ সালে তিনি দুর্ভিক্ষ কমিশনের সচিব, ১৮৮০ সালে আদমশুমারি কমিশনার, ১৮৮১ সালে আসামের প্রধান কমিশনার এবং ১৮৮৭ সালে গভর্নর জেনারেল কাউন্সিলের সদস্য ছিলেন।

বেশ শান্তিপূর্ণভাবে অতিবাহিত ইলিয়টের শাসনকাল বিশেষভাবে চিহ্নিত হয়ে আছে বাংলার জেলাসমূহের সার্ভে অ্যান্ড সেটলমেন্ট অপারেশনস, ১৮৯১ সালের আদমশুমারি, লুসাই ঘটনা, ব্রিটিশ সেনাবাহিনীতে অ্যাংলো-ইন্ডিয়ানদের অন্তর্ভুক্তি, আনুগত্যহীন ও উত্তেজনাকর সংবাদ পরিবেশনের জন্য বঙ্গবাসী পত্রিকার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের, ১৮৭০ সালের চৌকিদারি আইনের সংস্কার, খিদিরপুর ডক-এর নির্মাণ সমাপ্তি (১৮৯১-৯২), এবং লেবার ইনকোয়ারি কমিশন (১৮৯৬) প্রতিষ্ঠা ইত্যাদির জন্য। ১৯১১ সালের ২৮ মে তাঁর মৃত্যু হয়।  [সিরাজুল ইসলাম]