হুরাসাগর নদী

NasirkhanBot (আলোচনা | অবদান) কর্তৃক ০৫:১৮, ৫ মে ২০১৪ তারিখে সংশোধিত সংস্করণ (Added Ennglish article link)
(পরিবর্তন) ← পূর্বের সংস্করণ | সর্বশেষ সংস্করণ (পরিবর্তন) | পরবর্তী সংস্করণ → (পরিবর্তন)

হুরাসাগর নদী (Hurasagar River)  আত্রাই-বড়াল এবং ফুলঝড় (বাঙ্গালী-করতোয়া)-এর সম্মিলিত স্রোতধারা। চলন বিলের পূর্বপ্রান্তে চাঁচকইর নামক স্থানে গুমানী নদী গুর নদীর সঙ্গে মিলিত হয়ে গুমানী নামে প্রবাহিত হয়। চাটমোহরের পূর্ব দিকে এসে এটি বড়াল-এর সঙ্গে মিলিত হয়ে বড়াল (আত্রাই-বড়াল) নামে প্রবাহিত হয়েছে। চাটমোহর থেকে প্রায় ৪৮ কিমি পূর্ব-দক্ষিণে বাঘাবাড়ীর কাছে এই আত্রাই-বড়াল নদী তার বামতীরে ফুলঝড় (বাঙ্গালী-করতোয়া) নদীকে ধারণ করে এবং মিলিত প্রবাহ হুরাসাগর নাম ধারণ করে পূর্ব-দক্ষিণ দিকে প্রবাহিত হচ্ছে। বেড়া পুলিশ স্টেশনের কাছে হুরাসাগর তার ডান তীরে ইছামতি নদীর প্রবাহকে ধারণ করে যমুনা নদীতে পতিত হয়েছে।

বাঘাবাড়ী থেকে কিছুটা ভাটিতে বেড়া বাজারের সামান্য উত্তর-পশ্চিমে একটি বিরাট বহুমুখী সেচ প্রকল্পের নির্মাণ কাজ চলছে। এখানে একাধারে সেচ কাজের জন্য পানি হুরাসাগর থেকে নিয়ে ইছামতি নদী বা খালে দেওয়া হবে, যা এই সেচ প্রকল্পের প্রধান খাল হিসেবে ব্যবহার করা হবে। আবার বর্ষা মৌসুমে সেচ এলাকার অতিরিক্ত পানি নিষ্কাশন করে হুরাসাগর নদীর মাধ্যমে যমুনায় প্রবাহিত করা হবে।

ইছামতি থেকে নৌযানগুলির সরাসরি হুরাসাগরে যাওয়ার কোন সুবিধা ছিল না বিধায় একটি নেভিগেশন লক নির্মাণ করা হয়েছে, যার সাহায্যে দুই পার্শ্বের দুই নদীর পানির লেভেলে পার্থক্য থাকা সত্ত্বেও ছোট-খাটো দেশী নৌকা এপার-ওপার করা যায়। বর্তমানে এই নদীর প্রবাহ খুবই কমে গেছে, শুকনা মৌসুমে পানি প্রায় একেবারেই থাকে না যা ভবিষ্যতে বেড়া সেচ প্রকল্পের সফল পরিচালনার জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়াতে পারে। অক্ষাংশ অনুযায়ী এ নদীর অবস্থান ২৪°৬৭´ পূর্ব এবং  ৮৯°৬৭´ পশ্চিম দ্রাঘিমাংশ।  [মাসুদ হাসান চৌধুরী]