ব্রতনৃত্য

NasirkhanBot (আলোচনা | অবদান) কর্তৃক ০৪:৩৪, ৫ মে ২০১৪ তারিখে সংশোধিত সংস্করণ (Added Ennglish article link)
(পরিবর্তন) ← পূর্বের সংস্করণ | সর্বশেষ সংস্করণ (পরিবর্তন) | পরবর্তী সংস্করণ → (পরিবর্তন)

ব্রতনৃত্য  লোকনৃত্যবিশেষ। পার্থিব কল্যাণ কামনায় ইষ্টদেবতার নিকট প্রার্থনা জানিয়ে হিন্দু নারীরা যে আচারানুষ্ঠান পালন    করে তাকে বলা হয় ব্রত। এই ব্রতের সঙ্গে পরিবেশিত      নৃত্যই ব্রতনৃত্য।

ব্রতানুষ্ঠান সম্মিলিতভাবে পালিত হয় এবং এর উদ্দেশ্যকে বাস্তবায়িত করার লক্ষ্যেই নারীরা ব্রতনৃত্য করে থাকে। ব্রতের  ছড়া বা গানে দৈহিক, মানসিক ও আধ্যাত্মিক যেসব কামনা-বাসনা প্রকাশ পায়, সেসবের প্রতিফলন ঘটে ব্রতনৃত্যে।

ব্রতনৃত্যে ইহজাগতিক যে কামনা প্রকাশ পায় তাতে কোনো জটিল দর্শন নেই, আছে জীবনের কথা। অধিকাংশ নৃত্যে কিশোরী মেয়েরাই অংশ নেয়। সধবা নারীরা সাধারণত সূর্যব্রত, কার্তিকব্রত ও মেঘরানীর কুলানামানো ব্রতে অংশ নেয়। শেষোক্ত ব্রতে কয়েকজন সধবা নারী মাথায় ঘোমটা দিয়ে ডান হাতে অাঁচল টেনে ধরে এবং মাথায় কুলা নিয়ে ছড়া বলতে বলতে নাচের ভঙ্গিতে ব্রতের স্থান কয়েকবার প্রদক্ষিণ করে। সাধারণত দুটি পা, দুটি হাত ও কব্জির আন্দোলনের ওপরই ব্রতনৃত্য নির্ভর করে। কোমরের ওপরের অংশ, বিশেষত হাত এবং ঊর্ধ্ববাহু দ্বারা তারা নানা ভঙ্গিতে বিচিত্রভাব প্রকাশ করে। এই অতি সাধারণ ভঙ্গিমার মাধ্যমেই নারীমনের আশা-আকাঙ্ক্ষা, কমনীয়তা ও সৌন্দর্য প্রকাশ পায়। ব্রতনৃত্য সর্বদা সমষ্টিগতভাবে এবং ঘড়ির কাঁটার বিপরীতে ধীরে ধীরে অনুষ্ঠিত হয়।

হাতের মাধ্যমে বিভিন্ন মুদ্রার প্রকাশ ব্রতনৃত্যের প্রধান আকর্ষণ। কিশোরীদের ব্রতনৃত্যে যে ভঙ্গিমা প্রকাশ পায় তার সঙ্গে বিবাহিতা মহিলাদের মৌলিক পার্থক্য রয়েছে। বিবাহিতা মহিলারা কোমর ও দেহের সামনের অংশের আন্দোলন বেশি পরিমাণে করে, যার মাধ্যমে উর্বরতা ও মাতৃত্বের আকাঙ্ক্ষা এবং দেহগত কামনার স্থূল প্রকাশ ঘটে; অন্যদিকে কিশোরীদের নৃত্য শুধুই সাধারণ নৃত্যভঙ্গিমা।  [শীলা বসাক]