"চুন্দ্রিগড়, ইব্রাহীম ইসমাইল" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(Added Ennglish article link)
 
 
১ নং লাইন: ১ নং লাইন:
 
[[Category:বাংলাপিডিয়া]]
 
[[Category:বাংলাপিডিয়া]]
 +
[[Image:ChundrigarIbrahimIsmail.jpg|thumb|right|ইব্রাহীম ইসমাইল চুন্দ্রিগড়]]
 
'''চুন্দ্রিগড়, ইব্রাহীম ইসমাইল''' (১৮৯৮-১৯৬৮)  রাজনীতিক, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। ১৮৯৮ সালের ১৫ এপ্রিল আহমদাবাদে তাঁর জন্ম। তিনি বোম্বে (মুম্বাই) বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা শেষ করে আহমেদাবাদে আইন ব্যবসা শুরু করেন। চুন্দ্রিগড় ১৯১৪ সালে আহমেদাবাদ মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি ১৯৩৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে আহমেদাবাদ জেলা গ্রামীণ নির্বাচনী এলাকা থেকে বোম্বে আইন পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন এবং ওই  বছর বোম্বে হাইকোর্টে আইনব্যবসা শুরু করেন। ১৯৩৮ সালে তিনি মুসলিম লীগ পার্লামেন্টারী পার্টির ডেপুটি লিডার নির্বাচিত হন। তিনি বোম্বে প্রাদেশিক মুসলিম লীগের প্রেসিডেন্ট (১৯৪০-১৯৪৫) ছিলেন এবং অন্তর্বর্তীকালীন সরকারে বানিজ্য মন্ত্রী নিযুক্ত হন। ১৯৪৭ সালে স্বাধীন পাকিস্তানের প্রথম মন্ত্রিসভায় তিনি বানিজ্য মন্ত্রী ছিলেন। পরে তিনি আফগানিস্তানে পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত, উত্তর-পশ্চিম সীমান্ত প্রদেশের গভর্নর, পশ্চিম পাঞ্জাবের গভর্নর এবং আইন মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
 
'''চুন্দ্রিগড়, ইব্রাহীম ইসমাইল''' (১৮৯৮-১৯৬৮)  রাজনীতিক, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। ১৮৯৮ সালের ১৫ এপ্রিল আহমদাবাদে তাঁর জন্ম। তিনি বোম্বে (মুম্বাই) বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা শেষ করে আহমেদাবাদে আইন ব্যবসা শুরু করেন। চুন্দ্রিগড় ১৯১৪ সালে আহমেদাবাদ মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি ১৯৩৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে আহমেদাবাদ জেলা গ্রামীণ নির্বাচনী এলাকা থেকে বোম্বে আইন পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন এবং ওই  বছর বোম্বে হাইকোর্টে আইনব্যবসা শুরু করেন। ১৯৩৮ সালে তিনি মুসলিম লীগ পার্লামেন্টারী পার্টির ডেপুটি লিডার নির্বাচিত হন। তিনি বোম্বে প্রাদেশিক মুসলিম লীগের প্রেসিডেন্ট (১৯৪০-১৯৪৫) ছিলেন এবং অন্তর্বর্তীকালীন সরকারে বানিজ্য মন্ত্রী নিযুক্ত হন। ১৯৪৭ সালে স্বাধীন পাকিস্তানের প্রথম মন্ত্রিসভায় তিনি বানিজ্য মন্ত্রী ছিলেন। পরে তিনি আফগানিস্তানে পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত, উত্তর-পশ্চিম সীমান্ত প্রদেশের গভর্নর, পশ্চিম পাঞ্জাবের গভর্নর এবং আইন মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
  
৫ নং লাইন: ৬ নং লাইন:
  
 
ইব্রাহীম ইসমাইল চুন্দ্রিগড় ১৯৬৮ সালের ১৩ মার্চ লাহোরে মৃত্যুবরণ করেন।  [আবু জাফর]
 
ইব্রাহীম ইসমাইল চুন্দ্রিগড় ১৯৬৮ সালের ১৩ মার্চ লাহোরে মৃত্যুবরণ করেন।  [আবু জাফর]
 
 
[[Image:ChundrigarIbrahimIsmail.jpg|thumb|right|ইব্রাহীম ইসমাইল চুন্দ্রিগড়
 
]]
 
  
 
[[en:Chundrigar, Ibrahim Ismail]]
 
[[en:Chundrigar, Ibrahim Ismail]]

১১:৩৭, ১৭ নভেম্বর ২০১৪ তারিখে সম্পাদিত সর্বশেষ সংস্করণ

ইব্রাহীম ইসমাইল চুন্দ্রিগড়

চুন্দ্রিগড়, ইব্রাহীম ইসমাইল (১৮৯৮-১৯৬৮)  রাজনীতিক, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। ১৮৯৮ সালের ১৫ এপ্রিল আহমদাবাদে তাঁর জন্ম। তিনি বোম্বে (মুম্বাই) বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা শেষ করে আহমেদাবাদে আইন ব্যবসা শুরু করেন। চুন্দ্রিগড় ১৯১৪ সালে আহমেদাবাদ মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি ১৯৩৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে আহমেদাবাদ জেলা গ্রামীণ নির্বাচনী এলাকা থেকে বোম্বে আইন পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন এবং ওই  বছর বোম্বে হাইকোর্টে আইনব্যবসা শুরু করেন। ১৯৩৮ সালে তিনি মুসলিম লীগ পার্লামেন্টারী পার্টির ডেপুটি লিডার নির্বাচিত হন। তিনি বোম্বে প্রাদেশিক মুসলিম লীগের প্রেসিডেন্ট (১৯৪০-১৯৪৫) ছিলেন এবং অন্তর্বর্তীকালীন সরকারে বানিজ্য মন্ত্রী নিযুক্ত হন। ১৯৪৭ সালে স্বাধীন পাকিস্তানের প্রথম মন্ত্রিসভায় তিনি বানিজ্য মন্ত্রী ছিলেন। পরে তিনি আফগানিস্তানে পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত, উত্তর-পশ্চিম সীমান্ত প্রদেশের গভর্নর, পশ্চিম পাঞ্জাবের গভর্নর এবং আইন মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী ১৯৫৭ সালের অক্টোবর মাসে প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে পদত্যাগ করার পর প্রেসিডেন্ট ইস্কান্দার মীর্যা অন্তর্বর্তীকালীন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আই আই চুন্দ্রিগড়কে নিয়োগ করেন। তাঁর সরকার ছিল কৃষক শ্রমিক পার্টি, নিজাম-ই-ইসলাম পার্টি, মুসলিম লীগ এবং রিপাবলিকান পার্টি সমন্বয়ে গঠিত। মুসলিম লীগ এ শর্তে রিপাবলিকান পার্টির সঙ্গে কোয়ালিশন সরকার গঠনে সম্মত হয় যে, নির্বাচনী আইন সংশোধন করে দেশে স্বতন্ত্র নির্বাচনী নীতি কার্যকর করা হবে। কিন্তু মন্ত্রিপরিষদ গঠিত হওয়ার পর পূর্ব পাকিস্তানের মন্ত্রিগণ এবং রিপাবলিকান পার্টি প্রস্তাবিত সংশোধনীর বিরোধিতা করতে থাকে। কোয়ালিশন দলগুলোর মধ্যে মতপার্থক্যের সুযোগে প্রেসিডেন্ট ইস্কান্দার মীর্যা মাত্র দুই মাসের মধ্যে চুন্দ্রিগড়কে বরখাস্ত করেন।

ইব্রাহীম ইসমাইল চুন্দ্রিগড় ১৯৬৮ সালের ১৩ মার্চ লাহোরে মৃত্যুবরণ করেন।  [আবু জাফর]