হলিডে


হলিডে (The Holiday)  ঢাকা থেকে ইংরেজি ভাষায় প্রকাশিত একটি সাপ্তাহিক পত্রিকা। এনায়েতুল্লাহ্ খানের সম্পাদনায় ১৯৬৫ সালের ১ আগস্ট এটি প্রথম প্রকাশিত হয়। নিরপেক্ষভাবে সংবাদ ও মতামত প্রকাশের প্রত্যয় নিয়ে পত্রিকাটি যাত্রা শুরু করে। কিছুদিনের মধ্যে রাজনৈতিক লেখা ছাপাতেও শুরু করে। বিশ শতকের ষাটের দশকের শেষদিকে এবং সত্তরের দশকের প্রথম দিকে যখন উপমহাদেশের এই অংশে বাম রাজনীতি চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছায়, তখন পত্রিকাটি শিক্ষিত সমাজে ব্যাপক প্রভাব বিস্তার করতে সক্ষম হয়; কারণ পত্রিকাটি আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপটে রাজনৈতিক ভিন্নমত বিষয়ক লেখা ছাপাতে থাকে। স্বাধীনতাপূর্ব সময়ে হলিডে জনসাধারণের আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটিয়ে তদানীন্তন পূর্ব ও পশ্চিম পাকিস্তানের মধ্যকার অসমতা এবং পূর্ব পাকিস্তানের ওপর পশ্চিম পাকিস্তানের কর্তৃত্ব বিষয়ক লেখা ছাপায়। স্বাধীনতা-পরবর্তী সময়েও পত্রিকাটি সরকারের জনস্বার্থ বিরোধী কর্মকান্ডের সমালোচনা করে। পাশাপাশি বাম মতাদর্শ এবং জনগণের স্বার্থের পক্ষে লেখা ছাপায়। সত্তরের দশকের শেষদিকে এবং আশির দশকের প্রথমদিকে পত্রিকাটি উদার গণতান্ত্রিক মতাদর্শের পক্ষ সমর্থন করে। শুরুতে মুর্তজা বশীর অঙ্কিত শিরোনাম নিয়ে ব্রডশিটের আট পৃষ্ঠায় হলিডে প্রকাশিত হতো। পরে পাঠকের চাহিদা ভিত্তিক বিষয়ের ওপর লেখা প্রকাশ করতে গিয়ে ২০০১ সাল থেকে এর পৃষ্ঠাসংখ্যা ষোলোতে উন্নীত হয়।

হলিডে বেশ কয়েকটি মাসিক সাময়িকীও বের করেছে এবং বর্তমানে এর দুটি সাময়িকী বের হচ্ছে। এর একটি হচ্ছে বিমানযাত্রা এবং পর্যটন বিষয়ক এভিয়াটুর, অন্যটি হালকা ধরনের লেখা ভিত্তিক স্লেট। এভিয়াটুর বেশ কয়েক বছর যাবৎ নিয়মিত প্রকাশিত হচ্ছে।

হলিডে ১৯৭১ সালের পুরো সময় নিষিদ্ধ ছিল। ১৯৭২ সালের জানুয়ারিতে আবার প্রকাশিত হয়। ১৯৭৩ সালে প্রেস অ্যান্ড পাবলিকেশন অ্যাক্টের আওতায় দ্বিতীয়বারের মতো এর প্রকাশনা দুমাসের জন্য বন্ধ থাকে। সর্বশেষ ১৯৭৫ সালের ১৩ মে পত্রিকাটি আবার নিষিদ্ধ ঘোষিত হয় এবং এর সম্পাদককে বিশেষ ক্ষমতা আইনে আটক করা হয়। একই বছর ২৫ আগস্ট নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহূত হলে পত্রিকাটি ২ নভেম্বর থেকে নিয়মিত প্রকাশিত হতে থাকে।

পত্রিকাটির সম্পাদক এনায়েতুল্লাহ্ খান হলেও ১৯৭৫-৭৮ এবং ১৯৮৫-৮৯ সময়পর্বে তাঁর অবর্তমানে সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন ফজল এম. কামাল। প্রাকস্বাধীনতাকালে এর সম্পাদক হিসেবে নাম ছাপা হয় মাসুদা এনায়েতুল্লাহ্র।

পত্রিকাটির প্রথম কার্যালয় ছিল গ্রিন রোডের একটি বাড়িতে। ১৯৬৬ সালে তা স্থানান্তরিত হয় নয়া পল্টনে এবং ১৯৮৯ সাল থেকে তেজগাঁও শিল্প এলাকাস্থ নিজস্ব ভবনে এর কর্মকান্ড পরিচালিত হচ্ছে।  [আবু জার মোঃ আককাস]