স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ


স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ

স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ  পুরানো ঢাকার মিটফোর্ড হাসপাতালের সাথে সংযুক্ত হয়ে ১৮৭৫ সালে ঢাকা মেডিক্যাল স্কুল নামে প্রথম প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৮৮৯ সালে ১৬ জন দেশীয় রাজা ও সমাজসেবকের অনুদানে এর প্রধান ভবনটি নির্মিত হয়। ১৯৬২ সালে এটি মেডিক্যাল কলেজে রূপান্তরিত হয়। নবাব পরিবারের অবদানের কথা বিবেচনা করে নবাব স্যার সলিমুল­াহর (১৮৭১-১৯১৫) নামেই মেডিক্যাল কলেজটির নামকরণ করা হয়। প্রথম দিকে এখান থেকে চিকিৎসাবিজ্ঞানে Licentiate of the Medical Faculty (LMF) ডিগ্রি দেওয়া হতো। ১৯৫৭ সালে এল.এম.এফ কোর্স বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তীতে ১৯৬৩-১৯৭২ সাল পর্যন্ত সংক্ষিপ্ত এম.বি.বি.এস কোর্স চালু থাকে। এল.এম.এফ ডিগ্রিপ্রাপ্তদের দুই বছরের condensed course সম্পন্ন করার পর এম.এম.বি.এস ডিগ্রি দেওয়া হতো। ১৯৭২ সালে সরকার এটিকে পূর্ণাঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হিসেবে ঘোষণা করেন।

১৯৭৩ সালে এম.বি.বি.এস ১ম ব্যাচের ক্লাস শুরু হয়। ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত ঢাকার সিভিল সার্জন মেডিক্যাল কলেজ এবং মিটফোর্ড হাসপাতাল প্রশাসনের দায়িত্বে ছিলেন। এরপর মেডিক্যাল কলেজের জন্য অধ্যক্ষ এবং হাসপাতালের জন্য সুপারিনটেনডেন্ট নিয়োগ দেওয়া হয়। ১৯৮৪ সালের পর থেকে সুপারিনটেনডেন্টকে হাসপাতালের পরিচালক পদে উন্নীত করা হয়। কলেজে স্নাতকোত্তর পর্যায়ে প্রায় ২৫টি বিষয়ে শিক্ষা প্রদানের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। প্রায় ২.৮ একর জমির উপর কলেজটি স্থাপিত। বর্তমানে কলেজে প্রায় ১,০০০ জন ছাত্রছাত্রী ও ১৪৫ জন শিক্ষক রয়েছেন। প্রতিবছর ১ম বর্ষে ১৫০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হয়। কলেজ ক্যাম্পাসে ছাত্রছাত্রীদের জন্য দুটি পৃথক ছাত্রাবাস রয়েছে।  [সাইদুল হক]

আরও দেখুন মিটফোর্ড হাসপাতাল