স্কন্দের ধাপ


স্কন্দের ধাপ  একটি প্রত্নঢিবি। এখনও এটা অনেকটা অক্ষত আছে। বগুড়া সদর উপজেলার গোকুল ইউনিয়নের অন্তর্গত বাগোপাড়া গ্রামে অবস্থিত। এর অবস্থান  মহাস্থানগড় থেকে প্রায় ৩.৫ কিমি দক্ষিণে এবং করতোয়া নদী থেকে প্রায় ৯০ মি পশ্চিমে। প্রত্নঢিবিটির পশ্চিম দিকে প্রায় ৮ হেক্টর বিস্তীর্ণ ময়নামতীর দিঘি নামে একটি প্রাচীন পুকুর রয়েছে। প্রত্নঢিবিটি উত্তর-দক্ষিণে প্রায় ৬০ মি দীর্ঘ এবং পূর্ব-পশ্চিমে ৪০ মি প্রশস্ত; চারদিকের ভূমি থেকে এটি স্থান ভেদে ২-৭ মি উঁচু। প্রত্নস্থলের সর্বত্র প্রাচীন মৃৎপাত্র এবং ইটের টুকরা ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে। স্থানীয় অধিবাসিগণ কর্তৃক মাটি খননের ফলে প্রত্নঢিবিটির দক্ষিণ পাশে ২৮২৭৫ ঘন সেমি এবং ২৩১৯৪ ঘন সেমি পরিমাপের ইট নির্মিত একটি দেয়াল উন্মোচিত হয়েছে। দেয়াল নির্মাণে কাদামাটি মর্টার হিসেবে ব্যবহূত হয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, এই প্রত্নঢিবিতে খুব সম্ভবত করতোয়ামাহাত্ম্য, রাজতরঙ্গিণী এবং রামচরিত গ্রন্থে উল্লিখিত কন্দের মন্দিরটি লুকিয়ে আছে।

প্রত্নঢিবিটি মন্দির হলে মন্দির সংলগ্ন উত্তর-দক্ষিণে প্রায় ১০০০ মি এবং পূর্ব-পশ্চিমে প্রায় ২০০ মি বিস্তৃত ২০ হেক্টর এলাকা নিয়ে এখানে একটি জনবসতি ছিল। ঢাকা-রংপুর মহাসড়কটি প্রত্নস্থানের ভেতর দিয়ে চলে গেছে।

এই প্রত্নস্থলে এখনও খনন কাজ শুরু হয় নি। তবে প্রাথমিক অনুসন্ধানে এখানে লাল পাথরের একটি মস্তকহীন মূর্তি পাওয়া গেছে। অনুমান করা হয় যে, এটি কুষাণ যুগে নির্মিত একটি কার্তিকেয় মূর্তি। মূর্তিটি বর্তমানে কলকাতার  আশুতোষ মিউজিয়ামএ সংরক্ষিত।  [এস.এস মোস্তাফিজুর রহমান]