সোয়ারিঘাট


সোয়ারিঘাট  ঢাকার একটি পাইকারি মাছের বাজার। এটি ১৮৫০ সালে বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে প্রতিষ্ঠিত হয়। এটি ঢাকা শহরের পুরানো বাজারগুলির একটি। বর্তমানে এ বাজারে পাইকারি ব্যবসায়ী এবং আড়তদারের সংখ্যা ৫০০ থেকে ৭০০। এ বাজারে খুব ভোরে অল্পসময়ের জন্য কেনাবেচা হয়। বাজারটির মৎস্য বিক্রয় পদ্ধতি অন্যান্য বাজার থেকে সম্পূর্ণ ভিন্ন। এখানে মাঝারি ও বড় আকারের মাছ জাত ও আকার অনুযায়ী ভাগ করা হয় এবং হালির (৪টি= ১ হালি) ভিত্তিতে বিক্রয় করা হয়। কখনও কখনও মাঝারি আকারের সবচেয়ে ছোট মাছ মন (৩৭.৫০ কেজি) ভিত্তিতে বিক্রয় হয়। কক্সবাজার, টেকনাফ, চট্টগ্রাম, মুন্সিগঞ্জ, চাঁদপুর, বরিশাল, কুলিয়ারচর, যশোর এবং সাতক্ষীরা সহ দেশের অনেক অঞ্চল থেকে স্টিমার, লঞ্চ, নৌকা এবং ট্রাকে করে এ বাজারে মাছ সরবরাহ করা হয়। এ বাজারের ক্রেতারা ছোট পাইকার এবং তারা ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন খুচরা বাজারে ও কাছাকাছি শহরগুলিতে (যেমন নারায়ণগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, গাজীপুর, মুন্সিগঞ্জ এবং সাভার) বিক্রয় করে। এখানে ব্যবসায়িক কার্যকলাপ বিভিন্নভাবে হয়ে থাকে। পাইকারি দরে খুচরা বিক্রেতাদের নিকট বিক্রয় ছাড়াও কমিশন ভিত্তিতে বিক্রয় করা হয়ে থাকে। এখানে লেনদেন নগদে পরিশোধিত হয়ে থাকে, আবার বাকিতেও হয়ে থাকে। বাকিতে বিক্রয়ের ক্ষেত্রে লেনদেন এক সপ্তাহের মধ্যে অথবা প্রতি ব্যবসায়িক দিবসের শেষ ঘণ্টায় পরিশোধিত হয়। প্রতিদিন এ বাজারে গড়ে ২.৫ মিলিয়ন টাকা থেকে ৩ মিলিয়ন টাকার মাছ বিক্রয় হয় এবং এই বিক্রয়ের পরিমাণ নির্ভর করে মৌসুম অথবা মাছ ধরা ও পরিবহণের অবস্থার ওপর।  [মোঃ মাসুদুর রহমান]