সেন, শশাঙ্কমোহন


সেন, শশাঙ্কমোহন (১৮৭২-১৯২৮)  কবি, সাহিত্য-সমালোচক, শিক্ষাবিদ। ১৮৭২ সালের ১ জুলাই চট্টগ্রাম জেলার পটিয়া উপজেলার ধলঘাটে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা ব্রজকুমার সেনগুপ্ত ছিলেন বনবিভাগের কর্মচারী।

শশাঙ্কমোহন চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুল থেকে এন্ট্রান্স (১৮৯০),  চট্টগ্রাম কলেজ থেকে এফএ (১৮৯২), কলকাতার  প্রেসিডেন্সি কলেজ থেকে সংস্কৃতে অনার্সসহ বিএ (১৮৯৪) এবং রিপন কলেজ থেকে বিএল (১৮৯৭) ডিগ্রি লাভ করেন। কর্মজীবনে তিনি প্রথমে চট্টগ্রামে ওকালতি (১৮৯৭-১৯২০) করেন; পরে সাহিত্যের আকর্ষণে ওকালতি ছেড়ে  বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের অধ্যাপকরূপে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগদান করেন। সেখানে তিনি গোপালদাস চৌধুরী লেকচারার পদ অলঙ্কৃত করেন (১৯২১)।

শশাঙ্কমোহন কাব্য, কাব্যনাট্য ও সমালোচনা মিলিয়ে বেশ কয়েকটি গ্রন্থ রচনা করেন। তাঁর উল্লেখযোগ্য কয়েকটি রচনা: কাব্য  সিন্ধুসঙ্গীত (১৮৯৫), শৈলসঙ্গীত (১৯০৫), স্বর্গে ও মর্ত্যে (১৯১২), বিমানিকা (১৯২৪); কাব্যনাট্য  সাবিত্রী (১৯০৯), বিশ্বামিত্র; সমালোচনা বঙ্গবাণী (১৯১৫), মধুসূদন: অন্তর্জীবন ও প্রতিভা (১৯২২), বাণীমন্দির (১৯২৮) ইত্যাদি।

শশাঙ্কমোহন ধলঘাট উচ্চ বিদ্যালয়ের (১৯১৮) প্রতিষ্ঠাতা-সভাপতি ছিলেন। চট্টগ্রামের বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষৎ ও চট্টল হিতসাধিনী সভাসহ বেশ কয়েকটি সংগঠনের প্রতিষ্ঠা ও কার্যক্রমের সঙ্গে তিনি সক্রিয়ভাবে জড়িত ছিলেন। তিনি  কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক ‘বিদ্যাসাগর স্বর্ণপদক’ (১৮৯৪), চট্টগ্রাম ধর্মমন্ডলী কর্তৃক ‘কবিভাস্কর’ (১৯১৫), ঢাকার সারস্বত সমাজ কর্তৃক ‘বিদ্যাভূষণ’ (১৯২২) এবং কলকাতার নিখিল ভারত সাহিত্য সংঘ কর্তৃক ‘সাহিত্যবিনোদ’ উপাধিতে ভূষিত হন। ১৯২৮ সালের ১৬ এপ্রিল কলকাতায় তাঁর মৃত্যু হয়।  [মাহবুবুল হক]