সিলেট সরকারী আলিয়া মাদ্রাসা


সিলেট সরকারী আলিয়া মাদ্রাসা  সিলেট শহরের নইয়ুরপুল এলাকায় আঞ্জুমানে ইসলামিয়া নামে একটি ছোট বেসরকারি মাদ্রাসা ছিল। তৎকালীন আসাম সরকারের শিক্ষামন্ত্রী খান বাহাদুর আব্দুল মজীদ এ মাদ্রাসাটি সম্প্রসারণ ও সরকারিকরণের উদ্যেগ গ্রহণ করেন। ১৯১৩ সালে সরকার কলকাতা আলিয়া মদ্রাসার অধীন সিলেট শহরের প্রাণকেন্দ্র চৌহাট্টায় একটি সিনিয়র মাদ্রাসা পুনঃস্থাপন করে। ১৯৩৩ সালে এ মাদ্রাসাকে ঢাকা সেকেন্ডারি বোর্ডের অধীনে নিউ স্কিম হাই মাদ্রাসায় পরিণত করা হয়। পরবর্তীকালে এ মাদ্রাসাটিই ‘সিলেট আলিয়া মাদ্রাসা’ নামে খ্যাত হয়। আবু নসর ওহীদের প্রচেষ্টায় সিলেট আলিয়া ১৯৩৫ সালে কামিল হাদীস মঞ্জুরি লাভ করে। সিলেট আলিয়া মাদ্রাসা এদেশের আলিয়া মাদ্রাসা ধারার প্রথম কামিল মাদ্রাসা।

বর্তমানে মাদ্রাসায় রয়েছে নয় একর জমি, তিনটি বিল্ডিং, একটি ছাত্রাবাস এবং একটি ঐতিহাসিক ময়দান। সিলেটের বড় বড় রাজনৈতিক সভাগুলি এ ময়দানেই অনুষ্ঠিত হয়। মাদ্রাসায় রয়েছে একটি সমৃদ্ধ লাইব্রেরি। এতে প্রায় ১১,০০০ হাজার গ্রন্থ রয়েছে। মাদ্রাসায় বর্তমানে শিক্ষক সংখ্যা ১৮। এ প্রতিষ্ঠানের ফলাফল বরাবরই ভাল।

এ মাদ্রাসায় দাখিল নবম শ্রেণি হতে ছাত্র ভর্তি করা হয়ে থাকে। দাখিল ও আলিম শ্রেণিতে বিজ্ঞান শাখা রয়েছে। নবম শ্রেণি হতে কামিল পর্যন্ত ছাত্র সংখ্যা ৬৫০। তন্মধ্যে হাদীস বিভাগে ২৭৮। মাদ্রাসার কৃতি ছাত্রদের অন্যতম হলেন: সাবেক  স্পিকার হুমায়ুন রশিদ চৌধুরী, প্রফেসর ড. আবু সাঈদ মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ (ঢাবি) এবং সৈয়দ লোকমান হোসেন (অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, ঢাকা)।  [আ.ব.ম সাইফুল ইসলাম সিদ্দীকী]