সাইট সেভারস ইন্টারন্যাশনাল


সাইট সেভারস ইন্টারন্যাশনাল (Sight Savers International)  স্বল্প উন্নত দেশে, প্রধানত কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলিতে অন্ধত্ব নিরোধ ও নিরাময়ের লক্ষ্যে নিবেদিত একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান।  এই প্রতিষ্ঠান দৃষ্টিহীন শিশুদের শিক্ষা পরিষেবা দান ও প্রাপ্তবয়স্ক অন্ধদের পুনর্বাসন করার ব্যাপারেও সহায়তা করে। সাইট সেভারস ইন্টারন্যাশনালের বৈধ নাম রয়্যাল কমনওয়েলথ সোসাইটি ফর দ্য ব­াইন্ড (Royal Commonwealth Society for the Blind), যা রাজকীয় সনদের অধীনে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে সেবা প্রতিষ্ঠান হিসেবে সম্পৃক্ত। এটি দাতাদের কাছ থেকে সাহায্য চাওয়া বা বিদেশে কোন প্রকল্পের আওতায় কাজ নেওয়ার সময় সাইট সেভারস ইন্টারন্যাশনালকে বর্ণনামূলক নাম হিসেবে ব্যবহার করে। যেসব অংশীদার ব্যয়সাশ্রয়ের মাধ্যমে দরিদ্রতম সম্প্রদায়ের মানুষের মধ্যে উঁচু মানের কর্মসূচি বাস্তবায়নে সক্ষম, সাইট সেভারস ইন্টারন্যাশনাল তাদের সঙ্গে কাজ করে। অংশীদারদের মধ্যে রয়েছে ব্যক্তি মালিকানাধীন হাসপাতাল (অলাভজনক), স্থানীয় সেবামূলক সংগঠন, সরকারি সংস্থা, অন্ধদের দ্বারা অন্ধদের জন্য প্রতিষ্ঠিত সংগঠন, ধর্মীয় সংগঠন ইত্যাদি। সাইট সেভারস ইন্টারন্যাশনাল বর্তমানে ২০টি উন্নয়নশীল দেশে কাজ করছে। এই সংস্থার সঙ্গে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দাপ্তরিক সম্পর্ক রয়েছে। এটি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অন্ধত্ব নিরোধ কর্মসূচিসমূহ এবং একই উদ্দেশ্যে কর্মরত অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংগঠনের কর্মকান্ডকে নিবিড়ভাবে সমন্বয় করে।

বাংলাদেশে বিগত ২৬ বছর যাবৎ সাইট সেভারস ইন্টারন্যাশনাল ব্যাপকভাবে চক্ষু যত্ন পরিষেবা কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। বাংলাদেশ ন্যাশনাল সোসাইটি ফর দ্য ব­াইন্ড (BNSB), অফথ্যালমোলজিক্যাল সোসাইটি অব বাংলাদেশ (OSB), লায়নস, রোটারী ও অন্যান্য পরিষেবাদানকারী ক্লাব সরাসরি অনুদান ও যন্ত্রপাতি আকারে সাইট সেভারস ইন্টারন্যাশনাল-এর সাহায্য পেয়ে থাকে।

সাইট সেভারস ইন্টারন্যাশনাল ১৯৯৪ সালে চক্ষু শিবির কর্মসূচির বদলে মড্যুলার আই কেয়ার (MEC) কর্মসূচি প্রবর্তন করে। এটি একটি সমন্বিত চক্ষু যত্ন কর্মসুচি, যা একক কর্মসূচি থেকে চক্ষু পরিষেবা লাভ করার উদ্দেশ্যে নিরোধমূলক ও আরোগ্যকর পরিষেবার মড্যুলকে সুসংহত করে। সাইট সেভারস ইন্টারন্যাশনাল এই কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে বাংলাদেশের ৭টি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যৌথভাবে কাজের সম্পর্ক স্থাপন করেছে। মড্যুলার আই কেয়ার জেলায় পরিষেবাদানের একটি কর্মসূচি এবং যে জেলায় এই কর্মসুচি চালু থাকে সে জেলার কেন্দ্রে অবস্থিত ৫০ শয্যার চক্ষু হাসপাতালে এই পরিষেবা প্রদান করা হয়। সকল হাসপাতালে আইওএল (IOL)-সহ চক্ষুর শল্যচিকিৎসা করা হয়। প্রতিটি ভিত্তি হাসপাতালকে কেন্দ্র করে পরিষেবার অন্যান্য উপাদানসমূহকে বিভিন্ন মড্যুলের আকারে গুচ্ছবদ্ধ করা হয়। হাসপাতাল থেকে ৫০-৮০ কিলোমিটার ব্যাসার্ধে প্রতিটি প্রকল্পের চারটি স্যাটেলাইট কেন্দ্র বা উপকেন্দ্র রয়েছে। এই কেন্দ্রগুলি চক্ষু ক্লিনিক পরিচালনা করে। কমিউনিটি চক্ষু যত্ন কর্মকান্ড প্রাথমিক চক্ষু যত্ন কর্মকান্ডের একটি অংশ। এই অংশের অন্তর্ভুক্ত হলো: চক্ষু যত্ন বিষয়ে জনগণের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি; স্কুলের শিক্ষার্থীদের দৃষ্টিশক্তি পরীক্ষা; চক্ষু চিকিৎসার জন্য গ্রামীণ এলাকার রোগী বাছাই; চোখে ছানি পড়া রোগী বাছাই করে পাঠানো; প্রধান হাসপাতালে শল্যচিকিৎসার জন্য সুপারিশকৃত রোগীদের বিনা ভাড়ায় আনা নেওয়ার ব্যবস্থা করা ইত্যাদি। এই কর্মসূচি শল্যচিকিৎসার উন্নত পদ্ধতি প্রয়োগ ও শল্য চিকিৎসা প্রদানের পর পরিষেবাদানের মাধ্যমে শল্যচিকিৎসার মান সম্পর্কে নিশ্চয়তা দান করে।

সাইট সেভারস ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের চট্টগ্রামের জাতীয় অন্ধ সমিতির (Bangladesh National Society for the Blind, Chittagong), চট্টগ্রাম চক্ষু হাসপাতাল ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (Chittagong Eye Infirmary and Training Centre) পরিচালিত বিভিন্ন চক্ষু বিষয়ক স্টাফ প্রশিক্ষণে ১৯৯৪ সাল থেকে কারিগরি ও অর্থ সাহায্য দিয়ে আসছে। এই কর্মসূচির অধীনে সাইট সেভারস ইন্টারন্যাশনাল ১৯৯৪ সাল থেকে এ পর্যন্ত ৬০ জন চিকিৎসক, ১২২ জন প্যারামেডিক ও ২৮ জন চক্ষুচিকিৎসা সহকারীকে সহায়তা দান করেছে।

সাইট সেভারস ইন্টারন্যাশনাল ১৯৯৭ সালে এম.এ ইনস্টিটিউট অব অফথ্যালমোলজি এবং ইসলামিয়া আই হসপিটালের সঙ্গে  যৌথভাবে প্রথমবারের মতো আইওএল অণুশল্যচিকিৎসা প্রশিক্ষণ কোর্স পরিচালনায় সাহায্য করেছে। এই প্রতিষ্ঠানের একটি সহযোগী প্রতিষ্ঠান ভারতের অরবিন্দ আই হসপিটাল ফ্যাকালটির সদস্যদের প্রশিক্ষণ ও শিক্ষাক্রম উন্নয়নসহ কারিগরি সাহায্য প্রদান করেছিল। এই কর্মসূচি প্রতিবছর ১৬ জনের বেশি আইওএল শল্যচিকিৎসককে প্রশিক্ষণ প্রদানের ক্ষমতা রাখে। সূচনালগ্ন থেকে ১৯৯৯ মার্চ পর্যন্ত এই কর্মসূচির অধীনে ২০ জনেরও অধিক আইওএল শল্যচিকিৎসক প্রশিক্ষণ লাভ করেছেন।

সাইট সেভারস ইন্টারন্যাশনাল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে বাংলাদেশ জাতীয় অন্ধ পরিষদের (Bangladesh National Council for the Blind) সঙ্গে যৌথভাবে সম্প্রতি চক্ষু যত্ন পাইলট প্রকল্প প্রবর্তন করেছে। এই প্রকল্প থেকে যে অভিজ্ঞতা অর্জিত হয়েছে তা জাতীয় চক্ষু যত্ন নীতি উন্নয়নে এবং ভবিষ্যৎ কর্মসূচি উন্নয়ন কৌশল অবলম্বনে সাহায্য করবে।

সাইট সেভারস ইন্টারন্যাশনাল ১৯৯৯ সাল থেকে সিলেট, সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জ জেলার অধীনে ১৯টি উপজেলায় চোখের ছানি পড়া রোগ হ্রাসে জরুরি কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে। এছাড়া অন্ধ শিশু সহায়তা বা অ্যাসিস্ট্যান্স ফর ব­াইন্ড চিল্ড্রেন (ABC) ও সে সঙ্গে অন্যান্য বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সহযোগিতার সম্পর্ক সম্প্রসারণের মাধ্যমে বাংলাদেশে স্থানীয় সমাজ ভিত্তিক পুনর্বাসন (Community Based Rehabilitation) কর্মসূচি বাস্তবায়নে অগ্রণী ভুমিকা পালন করেছে। সাইট সেভারস ইন্টারন্যাশনাল অন্ধদের শিক্ষার জন্য বাংলাদেশ জাতীয় অন্ধ পরিষদ ও অন্ধ শিশু সহায়তা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্ধ শিক্ষার্থীদেরকে মাসিক অর্থ সাহায্য করে আসছে। ১৯৭৭-১৯৮৯ সাল পর্যন্ত ১৫০০-এর অধিক শিক্ষার্থী অর্থ মঞ্জুরি পেয়েছেন। [মো. জালালউদ্দিন]