শাহবাজ খান


শাহবাজ খান (মৃত্যু ১৫৯৯)  লাহোরের কম্বু উপজাতির লোক। তাঁর প্রকৃত নাম ছিল শাহরুল্লাহ। মুলতানের বিখ্যাত দরবেশ বাহাউদ্দীন জাকারিয়ার শিষ্য হাজী ইসমাইল ছিলেন তাঁর ষষ্ঠতম পূর্বপুরুষ। আকবরের আমলে শাহবাজ খান মুগলদের অধীনে চাকরিতে যোগদান করেন এবং সম্রাটের সুনজরে পড়ে আমীরের পদপর্যাদায় উন্নীত হন। ১৫৭২ খ্রিস্টাব্দে তিনি মীর বখশী (প্রধান বেতন প্রদানকারী) নিযুক্ত হন এবং তাঁকে ‘শাহবাজ খান’ উপাধি দেওয়া হয়।

১৫৮৩ খ্রিস্টাব্দের ১৮ মে শাহবাজ খান বাংলার সুবাহদার নিযুক্ত হন। মাসুম খান কাবুলি, ঈসা খান ও তাঁদের মিত্রদের দমন করা ছিল তাঁর প্রধান দায়িত্ব। ১৫৮৩ খ্রিস্টাব্দের ১৫ নভেম্বর তিনি মাসুম খান কাবুলিকে পরাজিত করে ভাটিতে পালিয়ে যেতে বাধ্য করেন এবং মাসুম খানের এক মিত্র জববারী কুচবিহারে পালিয়ে যান। এর সুযোগ নিয়ে শাহবাজ খান বিদ্রোহীদের দুটি ঘাঁটি ঘোড়াঘাট ও শেরপুর মোর্চা দখল করে নেন। এরপর শাহবাজ খান ভাটির দিকে দৃষ্টি নিবদ্ধ করেন। ১৫৮৪ খ্রিস্টাব্দে তিনি ঈসা খানের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করে প্রথম দিকে কিছুটা সাফল্যও অর্জন করেন। তিনি কাত্রাবো, খিজিরপুর, সোনারগাঁওএগারসিন্ধুর বিধ্বস্ত করেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত এগারসিন্দুর ও ভাওয়ালের যুদ্ধে ঈসা খান ও তাঁর মিত্রদের কাছে শোচনীয় পরাজয়ের ফলে তিনি তান্ডায় ফিরে যেতে বাধ্য হন। ১৫৮৬ খ্রিস্টাব্দে আকবর প্রেরিত অতিরিক্ত সৈন্য সাহায্য পেয়ে শাহবাজ খান পুনরায়  ভাটি অঞ্চল অভিমুখে অগ্রসর হন এবং ঈসা খানকে মুগলদের সঙ্গে সমঝোতা করতে বাধ্য করেন।

১৫৮৬ খ্রিস্টাব্দের নভেম্বর মাসে শাহবাজ খান বাংলার বখশী নিযুক্ত হন এবং ১৫৮৮ খ্রিস্টাব্দে বাংলা ত্যাগের পূর্ব পর্যন্ত তিনি এই পদে বহাল ছিলেন। ১৫৯৯ খ্রিস্টাব্দের ১১ নভেম্বর আজমীরে তাঁর মৃত্যু হয়।  [এ.এ শেখ মোঃ আসরারুল হক চিশতি]