লোয়ার কুমার নদী


লোয়ার কুমার নদী  কুমার নদের নিম্নাংশ লোয়ার কুমার নামে পরিচিত। নদীটি রাজৈর উপজেলার টেকেরহাট নামক স্থানে কুমার নদ থেকে উৎপন্ন হয়ে চর মুগুরিয়ায় আড়িয়াল খাঁ নদীতে পড়েছে। পূর্বে কুমার নদের এই অংশকে আপার কুমার নামে অভিহিত করা হতো। বিশ শতকের প্রথম দশকে মাদারীপুর বিল রুটের কাজ সমাপ্ত হলে আপার কুমারের অধিকাংশই উক্ত রুটের অন্তর্গত হয়ে যায় এবং টেকেরহাট এলাকার অংশ মাদারীপুর বিল রুট নামে অভিহিত হয়। তাই বর্তমানে লোয়ার কুমারের উৎপত্তি মাদারীপুর বিল রুট ধরা যেতে পারে।

বর্ষাকালে এই নদীটি নাব্য থাকে, কিন্তু শুকনা মৌসুমে নদীর উপরের অংশ অনাব্য হয়ে পড়ে। তবে চর মুগুরিয়া থেকে মোস্তফাপুর পর্যন্ত অংশ প্রায় সারা বৎসরই নাব্য থাকে। স্রোতের গতি লক্ষ্য করা গেছে সর্বোচ্চ ০.৬১ মিটার প্রতি সেকেন্ডে। নদীর ভাঙন প্রবণতা কম এবং বন্যায় ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণও তেমন উলে­খযোগ্য নয়। নদীটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৩০ কিমি। নদীতে জোয়ার-ভাটার প্রভাব রয়েছে।

রাজৈর উপজেলা সদর এই নদীর তীরে অবস্থিত; টেকেরহাট, রাজৈর, মোস্তফাপুর, চরমুগুরিয়া প্রভৃতি এ নদীর তীরবর্তী গুরুত্বপূর্ণ স্থান। টেকেরহাট প্রসিদ্ধ বাণিজ্য কেন্দ্র এবং নৌবন্দর; এখানে মিল্ক ভিটা কোম্পানির দুগ্ধ প্রক্রিজাতকরণ কারখানা আছে। চর মুগুরিয়াও একটি প্রসিদ্ধ বাণিজ্য বন্দর, এখানে একটি পাটকল আছে।  [মাসুদ হাসান চৌধুরী]