রোয়াংছড়ি উপজেলা


রোয়াংছড়ি উপজেলা (বান্দরবান জেলা) আয়তন: ৪৪২.৮৯ বর্গ কিমি। অবস্থান: ২২°০৩´ থেকে ২২°২০´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৯২°১৪´ থেকে ৯২°৩০´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ। সীমানা: উত্তরে রাজস্থলী ও বিলাইছড়ি উপজেলা, দক্ষিণে রুমা উপজেলা, পূর্বে বিলাইছড়ি ও রুমা উপজেলা, পশ্চিমে বান্দরবান সদর উপজেলা। উপজেলাটির বেশির ভাগ অংশই পর্বত ও বন দ্বারা বেষ্টিত।

জনসংখ্যা ২২৬২৯; পুরুষ ১২২৪৩, মহিলা ১০৩৮৬। মুসলিম ১৯২৬, হিন্দু ২১৯, বৌদ্ধ ৩৭৬৬, খ্রিস্টান ১৫৫৯১ এবং অন্যান্য ১১২৭। এ উপজেলায় চাকমা, মারমা, মুরং, ত্রিপুরা প্রভৃতি আদিবাসী জনগোষ্ঠীর বসবাস রয়েছে।

জলাশয় প্রধান নদী: সাঙ্গু।

প্রশাসন রোয়াংছড়ি থানা গঠিত হয় ১৯৭৬ সালে এবং থানাকে উপজেলায় রূপান্তরিত করা হয় ১৯৮৫ সালে।

উপজেলা
পৌরসভা ইউনিয়ন মৌজা গ্রাম জনসংখ্যা ঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিমি) শিক্ষার হার (%)
শহর গ্রাম শহর গ্রাম
- ১৩ ১৬২ ৩৯৯০ ১৮৬৩৯ ৫১ ৩৬.৪ ২১.০
উপজেলা শহর
আয়তন (বর্গ কিমি) মৌজা লোকসংখ্যা ঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিমি) শিক্ষার হার (%)
৫৪.৩৯ ৩৯৯০ ৭৩ ৩৬.৪৪
ইউনিয়ন
ইউনিয়নের নাম ও জিও কোড আয়তন (একর) লোকসংখ্যা শিক্ষার হার (%)
পুরুষ মহিলা
আলিখং ১৯ ২৮১৬০ ২৬৯১ ২১০১ ১৯.৯৪
তড়ছা ৭৬ ৩২০০০ ৪০৫৫ ৩৫১৭ ১৭.১০
নোয়াপাতং ৩৮ ১৭৯২০ ১৯২৯ ১৭৪৩ ২৬.৯৯
রোয়াংছড়ি ৫৭ ৩১৩৬০ ৩৫৬৮ ৩০২৫ ৩২.৪১

সূত্র আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।

RowangchhariUpazila.jpg

ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান মসজিদ ৪, মন্দির ১, গির্জা ১৩, কেয়াং ৪৭।

শিক্ষার হার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড় হার ২৩.৮%; পুরুষ ৩০.৪%, মহিলা ১৬.০%। মাধ্যমিক বিদ্যালয় ৪, প্রাথমিক বিদ্যালয় ৪২, কমিউনিটি বিদ্যালয় ৩, কিন্ডার গার্টেন ১। উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান: রোয়াংছড়ি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, বেতছড়া জুনিয়র হাইস্কুল, রোয়াংছড়ি আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দোছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান লাইব্রেরি ১, কাব ১, অডিটোরিয়াম ৩, কমিউনিটি সেন্টার ৩, যাত্রাদল ৫, সাংস্কৃতিক সংগঠন ১, মহিলা সংগঠন ১, খেলার মাঠ ৬।

দর্শনীয় স্থান রামাজক পাহাড়।

জনগোষ্ঠীর আয়ের প্রধান উৎস কৃষি ৭৯.৭৯%, অকৃষি শ্রমিক ৪.৩৭%, ব্যবসা ৫.০৮%, পরিবহণ ও যোগাযোগ ০.২৪%, চাকরি ৪.০৭%, নির্মাণ ০.৩২%, ধর্মীয় সেবা ০.২১%, রেন্ট অ্যান্ড রেমিটেন্স ০.১৩% এবং অন্যান্য ৫.৭৯%।

কৃষিভূমির মালিকানা ভূমিমালিক ৩৬.৫৮%, ভূমিহীন ৬৩.৪২%। শহরে ২৬.৬২% এবং গ্রামে ৩৯.০৬% পরিবারের কৃষিজমি রয়েছে।

প্রধান কৃষি ফসল ধান, তিল, আদা, হলুদ, শাকসবজি।

বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় ফসলাদি তুলা।

প্রধান ফল-ফলাদি কলা, কাঁঠাল, কমলা, আনারস, পেঁপে।

শিল্প ও কলকারখানা ধানকল, আটাকল, বরফকল, করাতকল, ওয়েল্ডিং কারখানা।

কুটিরশিল্প তাঁতশিল্প, মৃৎশিল্প, কাঠের কাজ, বাঁশের কাজ, বেতের কাজ।

হাটবাজার ও মেলা হাটবাজার ৯। রোয়াংছড়ি বাজার, আলিখং বাজার, ঘেরাও বাজার, গোয়ালিখলা হাট ও বুড়োর হাট উল্লেখযোগ্য।

প্রধান রপ্তানিদ্রব্য কলা, আনারস, হলুদ।

বিদ্যুৎ ব্যবহার এ উপজেলার সবক’টি ইউনিয়ন পল্লিবিদ্যুতায়ন কর্মসূচির আওতাধীন। তবে ৭.২৪% পরিবারের বিদ্যুৎ ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে।

প্রাকৃতিক সম্পদ পাথর।

পানীয়জলের উৎস নলকূপ ১৮.৫৮%, ট্যাপ ২.০১%, পুকুর ৫.০৪% এবং অন্যান্য ৭৪.৩৭%।

স্যানিটেশন ব্যবস্থা এ উপজেলার ৭.০৩% (গ্রামে ৩.২৬% এবং শহরে ২২.২০%) পরিবার স্বাস্থ্যকর এবং ৩১.৫৫% (গ্রামে ২৬.৩২% এবং শহরে ৫২.৫৯%) পরিবার অস্বাস্থ্যকর ল্যাট্রিন ব্যবহার করে। ৬১.৪২% পরিবারের কোনো ল্যাট্রিন সুবিধা নেই।

স্বাস্থ্যকেন্দ্র উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ১, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্র ৪, কমিউনিটি ক্লিনিক ৪, ডায়াগনস্টিক সেন্টার ১, পশু চিকিৎসা কেন্দ্র ১।

এনজিও কারিতাস, ব্র্যাক, গ্রাউস, তৈমু। [আতিকুর রহমান]

তথ্যসূত্র আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো; রোয়াংছড়ি উপজেলা সাংস্কৃতিক সমীক্ষক্ষা প্রতিবেদন ২০০৭।