বেতাগী উপজেলা


বেতাগী উপজেলা (বরগুনা জেলা)  আয়তন: ১৬৭.৭৫ বর্গ কিমি। অবস্থান: ২২°১৩´ থেকে ২২°২৯´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৯০°০৪´ থেকে ৯০°১৫´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ। সীমানা: উত্তরে বাকেরগঞ্জ, রাজাপুর ও কাঁঠালিয়া উপজেলা, দক্ষিণে বরগুনা সদর উপজেলা, পূর্বে মির্জাগঞ্জ উপজেলা, পশ্চিমে কাঁঠালিয়া ও বামনা উপজেলা।

জনসংখ্যা ১১৯৩৫৬; পুরুষ ৬০০৬৭, মহিলা ৫৯২৮৯। মুসলিম ১০৭১১০, হিন্দু ১১৯৮৩, বৌদ্ধ ২৩৬ এবং অন্যান্য ২৭।

জলাশয় প্রধান নদী: বিশখালী, গজালিয়া। কাটাখালি ও করুণা খাল উল্লেখযোগ্য।

প্রশাসন বেতাগী থানা গঠিত হয় ১৯২০ সালে এবং থানাকে উপজেলায় রূপান্তর করা হয় ১৯৮৩ সালে।

উপজেলা
পৌরসভা ইউনিয়ন মৌজা গ্রাম জনসংখ্যা ঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিমি) শিক্ষার হার (%)
শহর গ্রাম শহর গ্রাম
৫৯ ৭৩ ১০৮৫৫ ১০৮৫১ ৭১১ ৫৯.৭
পৌরসভা
আয়তন (বর্গ কিমি) ওয়ার্ড মহল্লা লোকসংখ্যা ঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিমি) শিক্ষার হার (%)
৪.১ ৮৩৬৮ ৪৪৯ ৭৬.৯
উপজেলা শহর
আয়তন (বর্গ কিমি) মৌজা লোকসংখ্যা ঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিমি) শিক্ষার হার (%)
৩.৬২ ২৪৮৭ ৬৮৭ ৬৯.২
ইউনিয়ন
ইউনিয়নের নাম ও জিও কোড আয়তন (একর) লোকসংখ্যা শিক্ষার হার (%)
পুরুষ মহিলা
কাজিরাবাদ ৫৯ ৪৮৬৩ ৭৬৯০ ৭২৭৪ ৬১.১২
বিবিচিনি ২৩ ৫৬৯২ ৮৫৪৯ ৮৯৮২ ৫১.৮৩
বুড়া মজুমদার ৩৫ ৫৪৬৬ ৭৫৫২ ৭০২১ ৫৮.৭৭
বেতাগী ১১ ৬০৪৬ ৮২৮৬ ৮৪১৬ ৫৮.৪৮
মোকামিয়া ৭১ ৪৭৮৪ ৭৩০২ ৭৩১৫ ৬১.৬৮
সরিষামুড়ি ৮৩ ৫৫৯৬ ৭২৭৭ ৭৫৮৪ ৫৪.৫০
হোসনাবাদ ৪৭ ৬৩০১ ৯০০৪ ৮৭৩৬ ৬১.৪৮

সূত্র আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।

প্রাচীন নিদর্শনাদি ও প্রত্নসম্পদ বিবিচিনি শাহী মসজিদ।

BetagiUpazila.jpg

মুক্তিযুদ্ধের ঘটনাবলি মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন উপজেলার বেতাগী বাজারের পূর্বাংশে পাকবাহিনী আগুন ধরিয়ে দিলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। পাকবাহিনী ও মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে বুড়া মজুমদার ইউনিয়নের বদনিখালী বাজারে সংঘটিত সম্মুখ লড়াইয়ে কিছুসংখ্যক পাকসেনা ও রাজাকার নিহত হয় এবং পাকবাহিনীর এমভি মুনির নামক লঞ্চটির ব্যাপক ক্ষতি হয়।

ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান  মসজিদ ৪৬০, গির্জা ১, মাযার ৪, তীর্থস্থান ২।

শিক্ষার হার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড় হার ৫৯.৭২%; পুরুষ ৬২.৯%, মহিলা ৫৬.৫%। কলেজ ৭, মাধ্যমিক বিদ্যালয় ২২, প্রাথমিক বিদ্যালয় ১৪০, মাদ্রাসা ৫৮। উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান: বেতাগী ডিগ্রি কলেজ (১৯৯৯), বেতাগী বিজনেস এন্ড টেকনিক্যাল কলেজ (২০০৪), নুরজাহান বিজনেস এন্ড টেকনিক্যাল কলেজ (২০০৪), কাউনিয়া এমদাদিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় (১৯০৬), বেতাগী মাধ্যমিক বিদ্যালয় (১৯৪১), চান্দখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয় (১৯৫৯), লক্ষীপুরা রহমত মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মোকামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা (১৯৩৫)।

পত্র-পত্রিকা ও সাময়িকী পাক্ষিক: বিশখালী, বেতাগীর কণ্ঠ; অবলুপ্ত: বেতাগীর কথা।

সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান লাইব্রেরি ২, ক্লাব ৩২, সাহিত্য সংগঠন ২, মহিলা সংগঠন ২, সিনেমা হল ২।

জনগোষ্ঠীর আয়ের প্রধান উৎস কৃষি ৬১.২৯%, অকৃষি শ্রমিক ৩.০৪%, শিল্প ০.৪৪%, ব্যবসা ১৩.৩৩%, পরিবহণ ও যোগাযোগ ১.৩৭%, চাকরি ৮.৯৪%, নির্মাণ ১.৫৫%, ধর্মীয় সেবা ০.১৯%, রেন্ট অ্যান্ড রেমিটেন্স ০.২৪% এবং অন্যান্য ৯.৬১%।

প্রধান কৃষি ফসল ধান, গম, ভুট্টা, আলু, খেসারি, মুগ, চীনাবাদাম, শাকসবজি।

বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় ফসলাদি পাট, তিল, সরিষা।

প্রধান ফল-ফলাদি কলা, কাঁঠাল, আম, নারিকেল, আমড়া, পেঁপে, তাল, তরমুজ, বেল।

মৎস্য, গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগির খামার গবাদিপশু ১৫, হাঁস-মুরগি ১৭, হ্যাচারি ২।

যোগাযোগ বিশেষত্ব পাকারাস্তা ৪২ কিমি, আধা-পাকারাস্তা ১২ কিমি, কাঁচারাস্তা ৩৫৫ কিমি।

বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় সনাতন বাহন পাল্কি।

শিল্প ও কলকারখানা রাইসমিল, স’মিল, আইস ফ্যাক্টরি, স্টোরেজ ব্যাটারি ওয়ার্কসপ।

কুটিরশিল্প স্বর্ণশিল্প, লৌহশিল্প, দারুশিল্প, সূচিশিল্প, বাঁশ ও বেতের কাজ।

হাটবাজার ও মেলা হাটবাজার ১৮, মেলা ৩। বদনিখালী হাট, কাজীর হাট, মোল্লার হাট, কাউনিয়া হাট; বেতাগী বাজার, মোকামিয়া বাজার, চান্দখালী বাজার এবং কবিরাজবাড়ির মেলা, বৈশাখি মেলা ও বুড়া মজুমদার কাচারিবাড়ির মেলা উল্লেখযোগ্য।

প্রধান রপ্তানিদ্রব্য ধান, চাল, খেসারি, কলা, চিংড়ি।

বিদ্যুৎ ব্যবহার এ উপজেলার সবক’টি ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন পল্লিবিদ্যুতায়ন কর্মসূচির আওতাধীন। তবে ১৯.২১% পরিবারের বিদ্যুৎ ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে।

পানীয়জলের উৎস নলকূপ ৯২.২%, ট্যাপ ০.১৫%, পুকুর ৪.৯৩% এবং অন্যান্য ২.৭২%।

স্যানিটেশন ব্যবস্থা এ উপজেলার ৫৮.৪৭% (গ্রামে ৫৫.৮৪% ও শহরে ৮৪.৫৬%) পরিবার স্বাস্থ্যকর এবং ৩৫.৭৭% (গ্রামে ৩৭.৯৯% ও শহরে ১৩.৭৫%) পরিবার অস্বাস্থ্যকর ল্যাট্রিন ব্যবহার করে। ৫.৭৭% পরিবারের কোনো ল্যাট্রিন সুবিধা নেই।

স্বাস্থ্যকেন্দ্র উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্র ১, স্যাটেলাইট ক্লিনিক ৭, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র ৭, পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্র ১।

এনজিও ব্র্যাক, আশা।  [সাইদুল ইসলাম মন্টু]

'তথ্যসূত্র আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো; বেতাগী উপজেলা সাংস্কৃতিক সমীক্ষা প্রতিবেদন ২০০৭।