বাকী, মুহম্মদ আবদুল্লাহিল


বাকী, মুহম্মদ আবদুল্লাহিল (১৮৮৬-১৯৫২)  ইসলামি চিন্তাবিদ, আহল-ই-হাদিস জামা’য়াতের নেতা, উপমহাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামী, ভারতীয় কেন্দ্রীয় ব্যবস্থা পরিষদ, পূর্ববাংলা আইন পরিষদ ও পাকিস্তান গণপরিষদের সদস্য। তিনি বর্ধমান জেলার টুবগ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। পরবর্তীকালে তিনি দিনাজপুরের নুরুল হুদায় বসতি স্থাপন করেন। রংপুর জেলার বদরগঞ্জ থানার লালবাড়ি মাদ্রাসায় প্রাথমিক শিক্ষা শেষে তিনি ভারতের কানপুর মাদ্রাসায় ধর্ম ও আরবি সাহিত্যে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করেন। মাওলানা আকরম খাঁ, মাওলানা মুনিরুজ্জামান ইসলামাবাদী ও ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহর সহযোগিতায় মওলানা আবদুল্লাহিল বাকী আঞ্জুমান-ই-উলামায়ে বাঙ্গালা প্রতিষ্ঠা ও এর কর্মতৎপরতায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। তিনি দীর্ঘদিন দিনাজপুর জেলা কংগ্রেসের সভাপতি ছিলেন। তিনি খিলাফতঅসহযোগ আন্দোলনএর অন্যতম নেতা ছিলেন। আইন অমান্য আন্দোলনএ যোগদানের দায়ে ১৯৩০ সালে তাঁকে দু’বার কারাবরণ করতে হয়। ১৯৩৪ সালে তিনি প্রজা পার্টি থেকে ভারতীয় কেন্দ্রীয় ব্যবস্থা পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন।

১৯৩৭ সালে তিনি নিখিল বঙ্গ প্রজা সমিতির সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৪৬ সালে মুসলিম লীগএ যোগদান করে তিনি পাকিস্তান আন্দোলনে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন এবং বঙ্গীয় আইন পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার পর তিনি পূর্ববাংলা আইন পরিষদ এবং পাকিস্তান গণপরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি কিছুকাল পূর্ববাংলা মুসলিম লীগের প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করেন।

ভারত বিভক্তির পূর্বে তিনি বিভিন্ন আহল-ই-হাদিস সম্মেলনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। ১৯৩৫ সালে রংপুরের হারাগাছে অনুষ্ঠিত উত্তরবঙ্গ আহল-ই-হাদিস সম্মেলনে তিনি সভাপতিত্ব করেন। ভারত বিভক্তির পর তিনি পূর্ববাংলা জমিয়তে আহলে হাদিস গঠনে সহায়তা দান করেন। বাংলা ছাড়াও আরবি, ফারসি, উর্দু ও ইংরেজিতে তাঁর বেশ দখল ছিল। আল-এসলাম পত্রিকায় তাঁর বেশ কয়েকটি প্রবন্ধ ছাপা হয়। তিনি পীরের ধ্যান নামক একটি পুস্তিকাও প্রণয়ন করেন। ১৯৫২ সালের ১ ডিসেম্বর তাঁর মৃত্যু হয়।  [মোঃ আবদুস সালাম]