বনছাগল


বনছাগল

বনছাগল (Serow)  ‘গোট অ্যান্টিলোপ’ (goat antelope) নামে পরিচিত চার প্রজাতির স্তন্যপায়ীর অন্যতম, অপর তিনটি হলো গোরাল (goral), চ্যামোইস (chamois) ও টাকিন (takin)।

বনছাগল গোরালের খুবই ঘনিষ্ঠ, তবে আকারে বড় এবং করোটির গর্তে রয়েছে কিছু ছোট ছোট মুখগ্রন্থি। বনছাগলের শিং গরালের মতোই কালো ও প্রায় ২০ সেমি লম্বা। বনছাগল Artiodactyla বর্গের Bovidae গোত্রের স্তন্যপায়ী প্রজাতি Capricornis sumatraensis-এর সাধারণ নাম।

ঘাড়ের কাছে বনছাগলের উচ্চতা ৯০-১১০ সেমি, পাতলা ও অমসৃণ লোমবিশিষ্ট ত্বক, ধোঁয়াটে কালো থেকে লাল রঙের দেহ এবং ঘাড়ের উপর আছে প্রকট কেশর এবং অত্যধিক লম্বা কান। বনছাগল দেখা যায় সুমাত্রা থেকে হিমালয়ের উত্তরাঞ্চল, জিয়াং ও দক্ষিণ চীনের নিম্নভূমি পর্যন্ত অঞ্চলে। বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রামেও দেখা যায়।

বনছাগল ঋতু পরিবর্তনের সঙ্গে স্থান বদল করে এবং গ্রীষ্মকালে উঁচু পাহাড়ে ওঠে। ঘাস ও গাছের পাতা খায়। গর্ভকাল ৭-৮ মাস, এক সঙ্গে একটি বাচ্চা প্রসব করে। প্রজাতিটি বাংলাদেশে অতি বিপন্ন।  [নুরজাহান সরকার]