বড়াল, অক্ষয়কুমার


NasirkhanBot (আলোচনা) কর্তৃক ০৪:১৯, ৫ মে ২০১৪ পর্যন্ত সংস্করণে (Added Ennglish article link)

(পরিবর্তন) ←পুর্বের সংস্করণ | সর্বশেষ সংস্করণ (পরিবর্তন) | পরবর্তী সংস্করণ→ (পরিবর্তন)

বড়াল, অক্ষয়কুমার (১৮৬০-১৯১৯)  উনিশ শতকের বাংলা সাহিত্যের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি। ১৮৬০ সালে কলকাতার চোরবাগানে এক সুবর্ণবণিক পরিবারে তাঁর জন্ম। কলকাতার বিখ্যাত হেয়ার স্কুলে পাঠাভ্যাস আরম্ভ করলেও স্কুলের সীমানা তিনি অতিক্রম করতে পারেননি। তবে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা বেশি দূর অগ্রসর না হলেও, আমৃত্যু তাঁর পাঠানুরাগ ছিল অব্যাহত। তিনি প্রকৃত অর্থেই একজন স্বশিক্ষিত মানুষ ছিলেন।

পেশা হিসেবে অক্ষয়কুমার চাকরিকে বেছে নেন। স্কুল ত্যাগের পর তিনি ‘দিল্লি অ্যান্ড লন্ডন ব্যাংক’-এর হিসাব বিভাগে কর্মচারিরূপে যোগদান করেন। কয়েক বছর উক্ত পদে চাকরি করার পর তিনি ‘নর্থ ব্রিটিশ লাইফ-ইনন্স্যুরেন্স কোম্পানি’তে হিসাবসচিব পদে যোগদান করেন এবং এ পদ থেকেই অবসর গ্রহণ করেন।

হেয়ার স্কুলের ছাত্রাবস্থাতেই অক্ষয়কুমার বাংলা গীতিকবিতার প্রবর্তক বিহারীলাল চক্রবর্তীর কবিতার প্রতি আকৃষ্ট হন এবং তাঁর কাব্যপ্রেরণাতেই তিনি কবিতা রচনায় মনোনিবেশ করেন। রবীন্দ্রনাথের মতো অক্ষয়কুমার বড়ালকেও বলা হয় ‘বিহারীলালের সাক্ষাৎ ভাবশিষ্য’। বাংলা গীতিকবিতার ইতিহাসে তিনি ‘বড়াল কবি’ নামে সুপরিচিত। নিসর্গ, প্রেম, শোক এবং মানববন্দনাবিষয়ক কবিতা রচনায় অক্ষয়কুমার স্বাতন্ত্র্যের পরিচয় দিয়েছেন। তাঁর চিন্তাধারা ছিল মার্জিত ও বিজ্ঞানমনস্ক।

অক্ষয়কুমার কাব্য ও নাটক মিলে অনেকগুলি গ্রন্থ রচনা করেছেন। তাঁর মধ্যে প্রধান কয়েকটি: প্রদীপ (১৮৮৪), কনকাঞ্জলি (১৮৮৫), ভুল (১৮৮৭), শঙ্খ (১৯১০), এষা (১৯১২), চন্ডীদাস (১৯১৭) ইত্যাদি। তাঁর সম্পাদিত গ্রন্থগুলির মধ্যে রাজকৃষ্ণ রায়ের কবিতা (১৮৮৭) এবং গিরীন্দ্রমোহিনী দাসীর অশ্রুমালা (১৮৮৭) উল্লেখযোগ্য। ১৯১৯ সালের ১৯ জুন তাঁর মৃত্যু হয়।  [বিশ্বজিৎ ঘোষ]