বঙ্গবিবুধজননী সভা


বঙ্গবিবুধজননী সভা একটি শিক্ষাসংসদ। সংস্কৃতচর্চাকে সুশৃঙ্খলরূপ দেওয়ার জন্য নবদ্বীপের বিশিষ্ট পন্ডিত ও অধ্যাপকবৃন্দ ১৮৮৬ খ্রিস্টাব্দে এটি স্থাপন করেন। শুরুতে এর নাম ছিল ‘সংস্কৃত বিদ্যাবিবর্দ্ধনী বিদগ্ধজননী সভা’। পাইকপাড়ার জমিদার ইন্দ্রচন্দ্র সিংহ এর সভাপতি এবং নবদ্বীপের মহেন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। ১৮৯৭ খ্রিস্টাব্দে সভার নাম পরিবর্তন করে করা হয় ‘বঙ্গবিবুধজননী সভা’। তখন নদীয়াধিপতি মহারাজ ক্ষিতীশচন্দ্র রায় এবং পন্ডিত সর্বেশ্বর সার্বভৌম যথাক্রমে সভাপতি ও সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯০৬ খ্রিস্টাব্দে স্যার  আশুতোষ মুখোপাধ্যায় এর সভাপতি নির্বাচিত হয়ে আমৃত্যু ঐ পদ অলঙ্কৃত করেন।

প্রধানত বর্ণাশ্রমধর্ম ও  সংস্কৃত শিক্ষার প্রসারই এ সভার মুখ্য উদ্দেশ্য ছিল। প্রথম দিকে এ সভা কর্তৃক একটি সুনির্দিষ্ট পাঠ্যসূচির অধীনে বাৎসরিক পরীক্ষা গ্রহণ ও ছাত্রছাত্রীদের ‘রত্ন’ উপাধি দানের ব্যবস্থা ছিল। এছাড়াও বিভিন্ন দুষ্প্রাপ্য পুথি-পুস্তক সংরক্ষণ এবং বিভিন্ন শাস্ত্রের গবেষণাকর্মে উৎসাহদানও এর কার্যক্রমের অন্তর্ভুক্ত ছিল। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটি টিকে থাকলেও তার কার্যক্রমে ভাটা পড়েছে।  [শুভেন্দুকুমার সিদ্ধান্ত]