ধানমন্ডি থানা


ধানমন্ডি থানা (ঢাকা মেট্রোপলিটন)  আয়তন ৪.৩৪ বর্গ কিমি। অবস্থান: ২৩°৪৩´ থেকে ২৩°৪৫´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৯০°২১´ থেকে ৯০°২৩´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ। সীমানা: উত্তরে মোহাম্মদপুর থানা, দক্ষিণে নিউমার্কেট ও হাজারীবাগ থানা, পূর্বে শেরেবাংলা নগর, কলাবাগান ও নিউমার্কেট থানা, পশ্চিমে হাজারীবাগ থানা।

জনসংখ্যা ১২৮৯৪২; পুরুষ ৭৪৩৬৮, মহিলা ৫৪৫৭৪। মুসলিম ১১০৭২৯, হিন্দু ১৬৮৩৬, বৌদ্ধ ৭৭০, খ্রিস্টান ৫৬৪ এবং অন্যান্য ৪৩।

জলাশয় ধানমন্ডি লেক

প্রশাসন ধানমন্ডি থানা গঠিত হয় ১৯৭৬ সালে।

থানা
ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন মহল্লা জনসংখ্যা ঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিমি) শিক্ষার হার (%)
শহর গ্রাম শহর গ্রাম
১+২ (আংশিক) ১৭ ৯৮৯৪২ - ২৯৭১০ ৭০.৯০ -
ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন
ওয়ার্ড নম্বর ও ইউনিয়ন আয়তন (বর্গ কিমি) লোকসংখ্যা শিক্ষার হার (%)
পুরুষ মহিলা
ওয়ার্ড  নং ৪৭ (আংশিক) ০.৪৯ ১৮৪৫৯ ১৩৭১৮ ৬১.৬৩
ওয়ার্ড  নং ৪৮ (আংশিক) ০.৯৮ ২৩৮৫৯ ১৬৮৮৭ ৭২.৮৯
ওয়ার্ড  নং ৪৯ ২.৮৭ ৩২০৫০ ২৩৯৬৭ ৭৮.১৭

সূত্র আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।

DhanmondiThana.jpg

প্রাচীন নিদর্শনাদি ও প্রত্নসম্পদ ধানমন্ডি শাহী ঈদগাহ (১৬৪০)।

মুক্তিযুদ্ধের ঘটনাবলি ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তাঁর ধানমন্ডি বাসভবনে পাকবাহিনীর হাতে বন্দি হন। গ্রেফতারের প্রাক্কালে তিনি ধানমন্ডির এ বাসভবন থেকেই বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণা দেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট রাষ্ট্রপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সামরিক বাহিনীর কতিপয় অফিসার কর্তৃক ঐ বাসভবনেই সপরিবারে নিহত হন।

ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ধানমন্ডি কেন্দ্রীয় মসজিদ, সোবহানবাগ মসজিদ, মসজিদ-উত-তাকওয়া উল্লেখযোগ্য।

শিক্ষার হার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান  গড় হার ৭০.৯০%; পুরুষ ৭৫.২৯%, মহিলা ৬৫.৩৭%। উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান: বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ (১৯৮৬), স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি (১৯৯৪), বাংলাদেশ ডেন্টাল কলেজ (১৯৯৬), দি ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিক (১৯৯৬), নর্দান ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ (১৯৯৬), ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (২০০৩), ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস (২০০৮), ঢাকা সিটি কলেজ (১৯৫৭), ধানমন্ডি টিউটোরিয়াল (১৯৭২), ড. মালিকা কলেজ অ্যান্ড ইউনিভার্সিটি, স্কলাস্টিকা স্কুল (১৯৭৭), স্যানিডেল স্কুল (১৯৮৫), অক্সফোর্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুল (১৯৮৭), ইউরোপিয়ান স্ট্যান্ডার্ড স্কুল (২০০১), ধানমন্ডি গার্লস হাইস্কুল, কাকলি উচ্চ বিদ্যালয়, ম্যাপল লিফ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, মাস্টার মাইন্ড, মেরি কুরি স্কুল, সাউথ ব্রিজ স্কুল।

সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ক্লাব ৪, জাদুঘর ১, কমিউনিটি সেন্টার ৭, খেলার মাঠ ৪। উল্লেখযোগ্য সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান: আবাহনী ক্লাব, সুলতানা কামাল মহিলা স্পোর্টস কমপ্লেক্স।

দর্শনীয় স্থান বা গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘর, ধানমন্ডি লেক ও রবীন্দ্র সরোবর, নজরুল একাডেমী (১৯৮৫), রাশিয়ান সেন্টার অব সায়েন্স অ্যান্ড কালচার, জার্মান কালচারাল সেন্টার, আলিয়স ফ্রঁসেস, দৃক গ্যালারি।

জনগোষ্ঠীর আয়ের প্রধান উৎস  কৃষি ০.৭৬%, অকৃষি শ্রমিক ১.১২%, শিল্প ১.৫৬%, ব্যবসা ২৮.০৮%, পরিবহণ ৭.৮৮%, চাকরি ৩৯.৪২%, নির্মাণ ২.৫৬%, রেন্ট অ্যান্ড রেমিট্যান্স ৫.২৪%, ধর্মীয় সেবা ০.১০% এবং অন্যান্য ১৩.২৮%।

কৃষিভূমির মালিকানা ভূমিমালিক ৬১.৮৭%, ভূমিহীন ৩৮.১৩%।

বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় ফসলাদি ধান, পাট, আখ, ডাল।

প্রধান ফল-ফলাদি  আম, কাঁঠাল, পেয়ারা।

যোগাযোগ বিশেষত্ব মোট সড়ক ৫০.১৪ কিমি।

বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় সনাতন বাহন পাল্কি, গরু ও ঘোড়ার গাড়ি।

কুটিরশিল্প স্বর্ণশিল্প, হস্তশিল্প, সূচিশিল্প, চামড়া শিল্প।

শপিং মল, বাজার মেট্রো শপিং মল, রাপা প্লাজা, এ.আর প্লাজা, নন্দন সুপার শপ, কনকর্ড রয়্যাল কোর্ট, অর্কিড প্লাজা, আনাম র‌্যাংগস্ প্লাজা, ড. রাফাতুল্লাহ হ্যাপি আর্কাডিয়া উল্লেখযোগ্য।

হোটেল ও রেস্তোরা  স্টার রেস্তোরা, হেলভেশিয়া, লাইলাতি, জিনজিয়াং, কেএফসি, বিএফসি।

বিদ্যুৎ ব্যবহার এ থানার সবক’টি ওয়ার্ড বিদ্যুতায়ন কর্মসূচির আওতাধীন। তবে ৯৭.৩৮% পরিবারের বিদ্যুৎ ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে।

পানীয়জলের উৎস নলকূপ ১১.২১%, ট্যাপ ৮৭.৯২%, পুকুর ০.০৫% এবং অন্যান্য ০.৮২%।

স্যানিটেশন ব্যবস্থা এ থানার ৮৯.৭৬% পরিবার স্বাস্থ্যকর এবং ৯.৮২% পরিবার অস্বাস্থ্যকর ল্যাট্রিন ব্যবহার করে। ০.৪২% পরিবারের কোনো ল্যাট্রিন সুবিধা নেই।

স্বাস্থ্যকেন্দ্র মেডিনোভা ডায়াগনস্টিক সেন্টার, বংলাদেশ মেডিকেল, জাপান বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতাল, ইবনে সিনা ডায়াগনস্টিক অ্যান্ড ইমেজিং সেন্টার, কিডনি হাসপাতাল উল্লেখযোগ্য।

এনজিও ব্র্যাক, কেয়ার, সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ, নারীপক্ষ, বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘ, বাংলাদেশ শিশু অধিকার ফোরাম।  [সৈয়দ সাবিবর আহম্মদ]

তথ্যসূত্র  আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।