দ্বিজ পশুপতি


দ্বিজ পশুপতি  মধ্যযুগের বাংলা রোম্যান্টিক প্রণয়োপাখ্যান রচয়িতা। কবি আত্মপরিচয়ে নিজেকে ‘ত্রিপুরা তনয়’ বলে উল্লেখ করেছেন। মধ্যযুগে বর্তমান নোয়াখালী, কুমিল্লা ও সিলেট ত্রিপুরার অন্তর্গত ছিল। কাব্যে সিলেটি ভাষার অনেক প্রয়োগ থেকে মনে হয় তিনি ছিলেন সিলেটের নাগরিক। তাঁর রচিত কাব্য চন্দ্রাবলী আওধি-হিন্দি ভাষার কবি কুতুবনের মৃগাবতী অবলম্বনে রচিত। কাব্যের ভণিতায় অসংখ্যবার কালীদেবীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করায় অনুমিত হয় যে, তিনি ছিলেন শাক্ত এবং কালীর সাধক। বাংলা ভাষায়  কাব্য রচনা করলেও তিনি সংস্কৃত ভাষায় পন্ডিত ছিলেন। তাঁর কাব্যে কিছু সংস্কৃত শ্লোক এবং অজস্র তৎসম শব্দের প্রয়োগ তাঁর সংস্কৃত জ্ঞানেরই নির্দেশ দেয়।  [কল্পনা ভৌমিক]