দেবী, নিরুপমা


দেবী নিরুপমা (১৮৮৩-১৯৫১)  কথাসাহিত্যিক। ১৮৮৩ সালের ৭ মে পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার বহরমপুরে তাঁর জন্ম। তাঁর পিতা নফরচন্দ্র ভট্ট বিচার বিভাগে চাকরি করতেন। নিরুপমা দেবীর বাল্যজীবন কাটে ভাগলপুরে। পরিবারের গন্ডির মধ্যে থেকে তিনি সাধারণ শিক্ষা লাভ করেন। অকাল বৈধব্য বরণের পর জ্যেষ্ঠ ভ্রাতা বিভূতিভূষণ ভট্ট এবং শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় তিনি সাহিত্য সাধনায় মনোনিবেশ করেন। বিভূতিভূষণ এবং শরৎচন্দ্র পরিচালিত হাতেলেখা পত্রিকার মাধ্যমে তাঁর সাহিত্যচর্চা শুরু হয়। তাঁর সাহিত্যিক ছদ্মনাম ছিল ‘শ্রীমতী দেবী’। উচ্ছৃঙ্খল তাঁর প্রথম  উপন্যাস। এছাড়া তাঁর উল্লেখযোগ্য অন্যান্য রচনা: অন্নপূর্ণার মন্দির (১৯১৩), দিদি (১৯১৫), আলেয়া (১৯১৭), বিধিলিপি (১৯১৯), শ্যামলী (১৯১৯), বন্ধু (১৯২১), আমার ডায়েরী (১৯২৭), যুগান্তরের কথা (১৯৪০), অনুকর্ষ (১৯৪১) ইত্যাদি। দিদি তাঁর শ্রেষ্ঠ উপন্যাস। পারিবারিক জীবনের প্রেম, সংঘাত এবং অন্তর্দ্বন্দ্ব তাঁর উপন্যাসের প্রধান উপজীব্য। স্বদেশী যুগে রচিত তাঁর বহু গান ও কবিতা সে সময়কার বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। সাহিত্যে অবদানের জন্য নিরুপমা দেবী  কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ভুবনমোহিনী স্বর্ণপদক (১৯৩৮) ও জগত্তারিণী স্বর্ণপদক (১৯৪৩) লাভ করেন। তিনি বৈষ্ণবধর্মে দীক্ষা নিয়ে শেষ জীবন বৃন্দাবনে কাটান। ১৯৫১ সালের ৭ জানুয়ারি বৃন্দাবনেই তাঁর মৃত্যু হয়।  [ওয়াকিল আহমদ]