দীঘিনালা উপজেলা


দীঘিনালা উপজেলা (খাগড়াছড়ি জেলা)  আয়তন: ৬৯৪.১২ বর্গ কিমি। অবস্থান: ২৩°০৪´ থেকে ২৩°৪৪´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৯১°৫৬´ থেকে ৯২°১১´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ। সীমানা: উত্তরে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য, দক্ষিণে লংগদু উপজেলা, পূর্বে বাঘাইছড়ি উপজেলা, পশ্চিমে পানছড়ি ও খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা এবং ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য। এ উপজেলায় গলামুন, কারমি মুড়া, লুটিবান, কুরাদিয়া পাহাড় উল্লেখযোগ্য।

জনসংখ্যা ৯২৭৪৩; পুরুষ ৪৮৫৯৭, মহিলা ৪৪১৪৬। মুসলিম ২৯৪২৩, হিন্দু ৮৫০৯, বৌদ্ধ ১০০৪, খ্রিস্টান ৫৩৭৭৭ এবং অন্যান্য ৩০। এ উপজেলায় চাকমা, ত্রিপুরা, মারমা  প্রভৃতি আদিবাসী জনগোষ্ঠীর বসবাস রয়েছে।

জলাশয় প্রধান নদী: মাইনী।

প্রশাসন দীঘিনালা থানা গঠিত হয় ১৯১৬ সালে এবং থানা উপজেলায় রূপান্তরিত হয় ১৯৮৪ সালে।

উপজেলা
পৌরসভা ইউনিয়ন মৌজা গ্রাম জনসংখ্যা ঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিমি) শিক্ষার হার (%)
শহর গ্রাম শহর গ্রাম
- ২২ ২৩৫ ১৩১১৭ ৭৯৬২৬ ১৩৪ ৬২.১ ৪৫.০
উপজেলা শহর
আয়তন (বর্গ কিমি) মৌজা লোকসংখ্যা ঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিমি) শিক্ষার হার (%)
১০.৩৬ ১৩১১৭ ১২৬৬ ৬২.০৭
ইউনিয়ন
ইউনিয়নের নাম ও জিও কোড আয়তন (একর) লোকসংখ্যা শিক্ষার হার (%)
পুরুষ মহিলা
কাবাখালী ৬৩ ১১৫২০ ৭৩৮৪ ৬৬১৮ ৪৭.৮৩
দীঘিনালা ৪৭ ১০৮৮০ ৬৮৩৮ ৬৩৩৪ ৪৭.২৬
বাবুছড়া ১৫ ৫৩১২০ ৭০৯৮ ৬১৯৯ ৩৯.৪৮
বোয়ালখালী ৩১ ৭৬৮০ ৯৪০১ ৮০৯০ ৫৭.১১
মিরং ৭৯ ৫৬৩২০ ১৭৮৭৬ ১৬৯০৫ ৪৫.৫৩

সূত্র আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।

DighinalaUpazila.jpg

শিক্ষার হার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান  গড় হার ৪৭.৫%; পুরুষ ৫৬.১%, মহিলা ৩৮.০%। উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান: দীঘিনালা সরকারি কলেজ, দীঘিনালা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, দীঘিনালা মডেল বালিকা বিদ্যালয়, হাসিনপুর উচ্চ বিদ্যালয়, অনাথ আশ্রম আবাসিক উচ্চ বিদ্যালয়, বাবুছড়া উচ্চ বিদ্যালয়, উদালবাগান উচ্চ বিদ্যালয়, রসিক নগর দাখিল মাদ্রাসা।

জনগোষ্ঠীর আয়ের প্রধান উৎস কৃষি ৬৫.৫৩%, অকৃষি শ্রমিক ৮.৫১%, ব্যবসা ৯.৭০%, চাকরি ৫.০১%, নির্মাণ ০.৪২%, ধর্মীয় সেবা ০.২০%, রেন্ট অ্যান্ড রেমিটেন্স ০.১০% এবং অন্যান্য ১০.৫৩%।

কৃষিভূমির মালিকানা ভূমিমালিক ৪৬.৯৬%, ভূমিহীন ৫৩.০৪%। শহরে ২৫.৮৫% এবং গ্রামে ৫০.৫৭% পরিবারের কৃষিজমি রয়েছে।

প্রধান কৃষি ফসল ধান, আদা, সরিষা, বাদাম, তিল, পাহাড়ি আলু, শাকসবজি।

প্রধান ফল-ফলাদি  কলা, কাঁঠাল।

মৎস্য, গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগির খামার হাঁস-মুরগির ৬।

যোগাযোগ বিশেষত্ব পাকারাস্তা ৯১ কিমি, আধা-পাকারাস্তা ৩৪ কিমি, কাঁচারাস্তা ২৮০কিমি।

বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় সনাতন বাহন গরুর গাড়ি।

শিল্প  ও কলকারখানা  রাইসমিল, স’মিল।

কুটিরশিল্প  তাঁতশিল্প, দারুশিল্প বাঁশ ও বেতের কাজ।

হাটবাজার ও মেলা দীঘিনালা বাজার, বাবুছড়া বাজার ও কল্যাণপুর বাজার উল্লেখযোগ্য।

বিদ্যুৎ ব্যবহার এ উপজেলার সবকটি ইউনিয়ন পল্লিবিদ্যুতায়ন কর্মসূচির আওতাধীন। তবে ১২.০১% পরিবারের বিদ্যুৎ ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে।

পানীয়জলের উৎস নলকূপ ৫৩.৪৫%, ট্যাপ ০.৩৪%, পুকুর ১.৯৩% এবং অন্যান্য ৪৪.২৮%।

স্যানিটেশন ব্যবস্থা এ উপজেলার ১৪.৩৮% (গ্রামে ৯.৩২% এবং শহরে ৪৩.৯৮%) পরিবার স্বাস্থ্যকর এবং ৭৩.৭১% (গ্রামে ৭৭.৮৭% এবং শহরে ৪৯.৩৫%) পরিবার অস্বাস্থ্যকর ল্যাট্রিন ব্যবহার করে।  ১১.৯১% পরিবারের কোনো ল্যাট্রিন সুবিধা নেই।

স্বাস্থ্যকেন্দ্র উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ১।  [আতিকুর রহমান]

তথ্যসূত্র  আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো; দীঘিনালা উপজেলা সাংস্কৃতিক সমীক্ষা প্রতিবেদন ২০০৭।