তিন তেঁতুল্যা


তিন তেঁতুল্যা  লোকসংস্কার বিশেষ। তিন ছেলের পর এক মেয়ে এবং তিন মেয়ের পর এক ছেলেকে গ্রাম বাংলার বিভিন্ন অঞ্চলে ‘তিন তেঁতুল্যা’, ‘তিন তেঁত্লে’, ‘তিরাল’ ইত্যাদি নামে অভিহিত করা হয়। ভারতের পাঞ্জাব ও মধ্য প্রদেশে এদের বলা হয় ‘ত্রিখাল’। লোকবিশ্বাস এ যে, এ জাতীয় মেয়ে হয় শুভ এবং ছেলে হয় অশুভ। মেয়েকে পিতার আর্থিক ও সাংসারিক উন্নতির সহায়ক মনে করা হয়। সে যতদিন পিতৃগৃহে অবস্থান করে ততদিন পিতৃগৃহ উত্তরোত্তর সমৃদ্ধ হতে থাকে। বিয়ের পর তার উপস্থিতি স্বামীগৃহের উন্নতির কারণ হয়। পিতা কন্যার অবর্তমানে সম্পদহানির আশঙ্কায় কন্যার শ্বশুরালয় থেকে প্রদত্ত স্বর্ণালঙ্কারের সামান্য অংশ গোপনে কেটে রেখে দেয়।

পক্ষান্তরে তিন তেঁত্লে ছেলের জন্ম পিতামাতার মৃত্যু, সম্পদহানি, গৃহে অগ্নিকান্ড ইত্যাদি দুর্ঘটনার কারণ হয়। এজন্য জন্মের পরপরই ঘরের বেড়া কেটে তাকে বের করে আনা হয় এবং একটি নতুন গামছা ছিঁড়ে ফেলা হয়। এতে তার অশুভত্ব কেটে যায় বলে মনে করা হয়। নোয়াখালী, ফরিদপুর, রাজশাহী, রংপুর প্রভৃতি অঞ্চলে এ সংস্কারটি এখনও কমবেশি বিদ্যমান।  [মোমেন চৌধুরী]