চৌধুরী, মফিজ আলী


NasirkhanBot (আলোচনা) কর্তৃক ০২:৫০, ৫ মে ২০১৪ পর্যন্ত সংস্করণে (Added Ennglish article link)

(পরিবর্তন) ←পুর্বের সংস্করণ | সর্বশেষ সংস্করণ (পরিবর্তন) | পরবর্তী সংস্করণ→ (পরিবর্তন)

চৌধুরী, মফিজ আলী (১৯১৯-১৯৯৪)  রাজনীতিক। ১৯১৯ সালে জয়পুরহাট জেলার মঙ্গলবাড়ি গ্রামে তাঁর জন্ম। পিতা আলী মোহাম্মদ চৌধুরী। মফিজ চৌধুরী কলকাতা প্রেসিডেন্সী কলেজ থেকে বিএসসি এবং ১৯৩৭ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএসসি ডিগ্রি লাভ করেন। ১৯৪৯ সালে তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফলিত রসায়ন শাস্ত্রে পিএইচ.ডি ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি লন্ডনের রয়েল অ্যাকাডেমি অব কেমিস্ট্রির সদস্য ছিলেন।

কলকাতা প্রেসিডেন্সী কলেজে অধ্যায়নকালে মফিজ চৌধুরী রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত হন। এ সময় তিনি নিখিল বঙ্গ মুসলিম ছাত্র সমিতির কার্যকরী কমিটির সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি সুভাষচন্দ্র বসুর হলওয়েল মনুমেন্ট অপসারণ আন্দোলনে অংশ নেন। মফিজ চৌধুরী ১৯৬৩ সালে আওয়ামী লীগে যোগ দেন। তিনি ছয় দফা আন্দোলন এবং ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানে অংশগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৭০ সালের নির্বাচনে বগুড়া-১ আসন থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি ১৯৭১ সালের অসহযোগ আন্দোলনে বগুড়ায় নেতৃত্ব দেন। মফিজ চৌধুরী ১৯৭১ সালের সেপ্টেমতরে বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরীর নেতৃত্বে জাতিসংঘে বাংলাদেশের প্রতিনিধিদলের সদস্য ছিলেন।

মফিজ চৌধুরী ১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধুর মন্ত্রিসভার একজন সদস্য হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন। ১৯৭৩ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি বগুড়া-১ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। একই বছর তিনি বাংলাদেশ সরকারের প্রাকৃতিক সম্পদ, বৈজ্ঞানিক ও কারিগরি গবেষণা এবং আণবিক শক্তি দফতরের মন্ত্রীর দায়িত্ব লাভ করেন। তিনি ১৯৭৫ সালে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে বাংলাদেশের প্রতিনিধিদলের উপনেতার দায়িত্ব পালন করেন।

লেখক হিসেবেও মফিজ চৌধুরী সুপরিচিত ছিলেন। বিশ শতকের ষাটের দশকে তিনি স্বদেশ নামে একটি বাংলা সাময়িকী সম্পাদনা ও প্রকাশ করেন। বিভিন্ন ভাষার বেশ কয়েকটি গ্রন্থও তিনি বাংলায় অনুবাদ করেন। ১৯৯৪ সালের ৩০ মে তাঁর মৃত্যু হয়।  [মোঃ আলী আকবর]