চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুল


চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুল  ১৮৩৬ সালে ব্রিটিশ সরকার প্রথমে ‘চট্টগ্রাম গভর্নমেন্ট স্কুল’ নামে এটি প্রতিষ্ঠা করেন। চট্টগ্রামে এটাই প্রথম ইংরেজি উচ্চ বিদ্যালয়। বিদ্যালয়টি স্থাপিত হয়েছিল চকবাজার প্যারেড ময়দানের দক্ষিণে ও মাদ্রাসা পাহাড় (বর্তমান মহসিন কলেজ)-এর পূর্বদিকস্থ ইংরেজ আমলের প্রথমদিকে নির্মিত একটি পাকা দালানে। ১৮৬৯ সালে সেখানে সরকারি এফ.এ কলেজ প্রতিষ্ঠিত হলে বিদ্যালয়টি মার্কট সাহেবের পাহাড়ের দক্ষিণ প্রান্তে বর্তমান সরকারি মুসলিম হাই স্কুলের দক্ষিণ পার্শ্বে একটি পাকা ভবনে স্থানান্তর করা হয়। ১৮৮৬ সালে বিদ্যালয়টি আইস ফ্যাক্টরি রোডে বর্তমান স্থানে পুনঃস্থাপন করা হয় এবং নাম পরিবর্তন করে চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুল রাখা হয়। এ বিদ্যালয়ের প্রথম অধ্যক্ষ ছিলেন মি. কুন্ডু। উনিশ শতকের জনপ্রিয় কবি  নবীনচন্দ্র সেন এ বিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলেন। বিশ শতকের প্রথম দশক পর্যন্ত বিদ্যালয়টি এন্ট্রাস স্কুল নামেই জনসাধারণের মধ্যে পরিচিত ছিল। চট্টগ্রামে ইংরেজি শিক্ষা বিস্তারের অন্যতম অগ্রদূত ডা. অন্নদাচরণ খাস্তগীর এ বিদ্যালয় থেকেই এন্ট্রাস পাস করেন। গ্রামীণ ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা ড. মুহাম্মদ ইউনুস, লেখক ড. হুমায়ূন আহমেদ এ বিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলেন। বিদ্যালয়টিতে প্রাতঃকালীন ও দিবা এ দু’পর্বে পাঠদান করা হয়। বিদ্যালয়টিতে ২১টি পাঠকক্ষ, ১টি  গ্রন্থাগার, ১টি কম্পিউটার ল্যাব, ২টি সাইন্স ল্যাব, ৩টি ছাত্রাবাস এবং ১টি অডিটোরিয়াম রয়েছে। বর্তমানে (২০১০) এ বিদ্যালয়ের ছাত্র সংখ্যা ২,০০০ এবং শিক্ষক-শিক্ষিকার সংখ্যা ৫৫। এ বিদ্যালয়ের ছাত্রাবাসে ২০০ ছাত্রের আবাসিক সুবিধা রয়েছে। এখানে কারিগরি শিক্ষাদানের ব্যবস্থাও আছে। এ বিদ্যালয়ের গ্রন্থাগারে বইয়ের সংখ্যা প্রায় ৭ হাজার। ১৯৯২ সালে স্কুলটি জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ স্কুল হিসেবে পুরস্কৃত হয়।  [সাদাত উল্লাহ খান]