গোরাপীর


গোরাপীর (১৪শ শতক)  হজরত শাহজালালের সঙ্গী এবং ইসলাম প্রচারক। প্রকৃত নাম শাহ সৈয়দ আববাস আলী মক্কী। ৬৯৩ হিজরি ২১ রমজান মক্কার জমজম মহল্লায় তাঁর জন্ম। তিনি ছিলেন হজরত আয়েশা সিদ্দিকা (রা.)-র বংশধর। ৭০৮ হিজরিতে শাহজালালের সফরসঙ্গী হয়ে তিনি  মক্কা ত্যাগ করেন এবং সিলেট বিজয়ের পর শাহজালালের নির্দেশে দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গে ইসলাম প্রচার করেন।

দেউলিয়ার রাজা চন্দ্রকেতু ছিলেন গোরা পীরের একজন শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বী। তাঁর কিছু দুর্ধর্ষ সৈন্য অতর্কিতে আক্রমণ চালিয়ে পীরকে মারাত্মকভাবে আহত করে এবং এ আঘাতের কারণেই ৭৭৩ হিজরির ২১ রমজান তাঁর মৃত্যু হয়। বিদ্যাধরী নদীর তীরে হাড়োয়া নামক স্থানে তাঁকে দাফন করা হয়। গৌড়ের সুলতান তাঁর কবরে মসজিদ নির্মাণ করেন এবং এর ব্যয় নির্বাহের জন্য ১৫০০ বিঘা জমি দান করেন।

গোরাপীর ছিলেন একজন অসাম্প্রদায়িক চেতনার মানুষ। ধর্মবর্ণ নির্বিশেষে সকলের নিকট তাঁর গ্রহণযোগ্যতা ছিল। বহু হিন্দু তাঁর শিষ্য ছিলেন। বিয়ের পূর্বে হিন্দু বরকনে গোরা পীরের মাযারে গিয়ে তাঁর আশিস কামনা করে। মাযারের সামনে প্রতি শুক্রবার হিন্দুরা কীর্তন করে। হিন্দু গোয়ালারা প্রতি বছর ১২ ফাল্গুন ১২ মন দুধ দিয়ে পীরের মাযার ধুয়ে দেয়। এ সময় সেখানে বিশাল মেলা বসে এবং ওরসেরও আয়োজন করা হয়। এ উপলক্ষে দূরাগত ভক্তদের থাকা-খাওয়ার সুবন্দোবস্ত রয়েছে।

গোরাপীর সম্পর্কে ফারসি, উর্দু ও বাংলায় অসংখ্য পুথি-পুস্তক রচিত হয়েছে। তাঁর স্মৃতি রক্ষার্থে কলকাতার পূর্বাঞ্চলে ‘গোরাচাঁদ রোড’ নামে একটি সড়কের নামকরণ করা হয়েছে। হাড়োয়ায় বহু দোকানপাটের নামের সঙ্গেও তাঁর স্মৃতি জড়িয়ে আছে।  [আলি নওয়াজ]