খোকসা উপজেলা


খোকসা উপজেলা (কুষ্টিয়া জেলা)  আয়তন: ১০৬.৭০ বর্গ কিমি। অবস্থান: ২৩°৪৪´ থেকে ২৩°৫৩´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৯°১৫´ থেকে ৮৯°২২´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ। সীমানা: উত্তরে কুমারখালী উপজেলা ও পাবনা সদর উপজেলা, দক্ষিণে শৈলকূপা উপজেলা, পূর্বে পাংশা উপজেলা, পশ্চিমে কুমারখালী উপজেলা।

জনসংখ্যা ১১৪১৮৮; পুরুষ ৫৮১৩১, মহিলা ৫৬০৫৭। মুসলিম ১০০৭০৪, হিন্দু ১৩৪৬৯, বৌদ্ধ ১৩ এবং অন্যান্য ২।

জলাশয় প্রধান নদী: গড়াই।

প্রশাসন খোকসা থানাকে উপজেলায় রূপান্তর করা হয় ১৯৮৩ সালে।

উপজেলা
পৌরসভা ইউনিয়ন মৌজা গ্রাম জনসংখ্যা ঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিমি) শিক্ষার হার (%)
শহর গ্রাম শহর গ্রাম
৮৫ ১০১ ২১৩০৩ ৯২৮৮৫ ১০৭০ ৪৯.৯ ৩৭.৩
পৌরসভা
আয়তন (বর্গ কিমি) ওয়ার্ড মহল্লা লোকসংখ্যা ঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিমি) শিক্ষার হার (%)
১২.৫০ - - - -
ইউনিয়ন
ইউনিয়নের নাম ও জিও কোড আয়তন (একর) লোকসংখ্যা শিক্ষার হার (%)
পুরুষ মহিলা
আমবাড়িয়া ৪৩ ১৮৫৭ ৪৯৮৯ ৪৯৬২ ২৯.৪৪
ওসমানপুর ৫৩৯ ১৩৩৪ ১৩২৬ ৪৭.১০
খোকসা ৪৭ ৮৫২০ ১৮১০৯ ১৭২৭৯ ৪১.৬৫
গোপগ্রাম ৪৩৪ ৩০৯২ ৩০১৬ ৪৩.০৭
জানিপুর ২৩ ৫৮৩২ ১১৯৩৭ ১০১৯৪ ৪১.৬১
জয়ন্তীহাজরা ১০৫৯ ১২৮১ ১২৬৭ ৩৩.০৫
বেতবাড়ীয়া ৩৯৬ ৭৮১ ৭২৬ ৪৪.৪১
শিমুলিয়া ১০৪৪ ২২১৫ ২১৩১ ৩৪.৫৬
সমাসপুর ৭১ ৬৬৮৪ ১৪৩৯৩ ১৪০৫৬ ৩৮.৬৮

সূত্র আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।

প্রাচীন নিদর্শনাদি ও প্রত্নসম্পদ কালীমন্দির এবং নীলকুঠি।

ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান রায়পুর পীরবাড়ি জামে মসজিদ, ফুলবাড়ি জামে মসজিদ, চাঁদোট জামে মসজিদ, হিজলাবট জামে মসজিদ, উথলি ব্যাপারীপাড়া জামে মসজিদ, মিয়াবাড়ি জামে মসজিদ, খোকসা কালী মন্দির, ফুলবাড়ি মন্দির উল্লেখযোগ্য।

শিক্ষার হার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড় হার ৩৯.৭%; পুরুষ ৪৩.৬%, মহিলা ৩৫.৬%। উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান: খোকসা জানিপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় (১৯০০), ফুলবাড়ি হাইস্কুল (১৯০০), সেনগ্রাম হাইস্কুল (১৯০৭), ঈশ্বরদী মাধ্যমিক বিদ্যালয় (১৯৬৪), খোকসা ডিগ্রি কলেজ (১৯৭২)।

KhoksaUpazila.jpg

পত্র-পত্রিকা ও সাময়িকী দ্রোহ (সাপ্তাহিক)।

সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান লাইব্রেরি ১৩, নাট্যদল ৪, যাত্রাদল ২, সিনেমা হল ৩, মহিলা সংগঠন ৩।

জনগোষ্ঠীর আয়ের প্রধান উৎস কৃষি ৫১.৯০%, অকৃষি শ্রমিক ৪.৬৮%, শিল্প ১০.২৩%, ব্যবসা ১৫.৩২%, পরিবহণ ও যোগাযোগ ৩.৯৭%, চাকরি ৬.৩৫%, নির্মাণ ১.২৯%, ধর্মীয় সেবা ০.০৮%, রেন্ট অ্যান্ড রেমিটেন্স ০.১৬% এবং অন্যান্য ৬.০২%।

কৃষিভূমির মালিকানা ভূমিমালিক ৫১.৪৬%, ভূমিহীন ৪৮.৫৪%। শহরে ২৪.১২% এবং গ্রামে ৫৮.১৬% পরিবারের কৃষিজমি রয়েছে।

প্রধান কৃষি ফসল ধান, গম, পাট, আলু, আখ।

বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় ফসলাদি নীল, কাউন, যব।

প্রধান ফল-ফলাদিব আম, জাম, কলা, কাঁঠাল, পেঁপে, লিচু।

মৎস্য, গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগির খামার এ উপজেলায় মৎস্য, হাঁস-মুরগির খামার ও হ্যাচারি রয়েছে।

যোগাযোগ বিশেষত্ব পাকারাস্তা ৫৪.০৮ কিমি, কাঁচারাস্তা ২০২.৭০ কিমি; নৌপথ ৩০ নটিক্যাল মাইল; রেলপথ ৫.২ কিমি, রেলস্টেশন ১।

বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় সনাতন বাহন পাল্কি, গরুর গাড়ি, ঘোড়ার গাড়ি।

শিল্প ও কলকারখানা বরফকল, চালকল, তেলকল, আটাকল, করাতকল।

কুটিরশিল্প তাঁতশিল্প, মৃৎশিল্প, বাঁশের কাজ, নকশী কাঁথা।

হাটবাজার ও মেলা একতাপুর হাট, গদাই হাট, মোড়াগাছা হাট, সেনগ্রাম হাট, আমবাড়িয়া হাট, ফুলবাড়ি হাট এবং মহিষবাথান রাশমেলা ও খোকসার কালী মেলা উল্লেখযোগ্য।

প্রধান রপ্তানিদ্রব্য  পাট, আখ।

বিদ্যুৎ ব্যবহার এ উপজেলার সবক’টি ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন পল্লিবিদ্যুতায়ন কর্মসূচির আওতাধীন। তবে ২২.৫৫% পরিবারের  বিদ্যুৎ ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে।

পানীয়জলের উৎস নলকূপ ৯৪.৯০%, ট্যাপ ০.৮৯%, পুকুর ০.১৪% এবং অন্যান্য ৪.০৭%।

স্যানিটেশন ব্যবস্থা এ উপজেলার ৪২.৫৯% পরিবার স্বাস্থ্যকর (গ্রামে ৫৯.২৫% এবং শহরে ৩৮.৮৪%) এবং ৩৭.১৬% পরিবার অস্বাস্থ্যকর ল্যাট্রিন (গ্রামে ২৯.৭১% এবং শহরে ৩৮.৮৪%) ব্যবহার করে। ২০.২৫% পরিবারের কোনো ল্যাট্রিন সুবিধা নাই।

স্বাস্থ্যকেন্দ্র উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ১, স্যাটেলাইট ক্লিনিক ২, পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্র ১, কমিউনিটি ক্লিনিক ৯।

এনজিও ব্র্যাক, আশা। [কামরুজ্জামান]

তথ্যসূত্র  আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১,বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো; খোকসা উপজেলা সাংস্কৃতিক সমীক্ষা প্রতিবেদন ২০০৭।