খুলশী থানা


খুলশী থানা (চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন)  আয়তন: ১২.৯ বর্গ কিমি। অবস্থান: ২২°২০´ থেকে ২২°২৩´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৯১°৪৬´ থেকে ৯১°৪৯´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ। সীমানা: উত্তরে বায়েজীদ বোস্তামী থানা ও সীতাকুন্ড উপজেলা, দক্ষিণে ডবল মুরিং ও কোতোয়ালী থানা, পূর্বে পাঁচলাইশ, বায়েজীদ বোস্তামী ও কোতোয়ালী থানা, পশ্চিমে পাহাড়তলী থানা।

জনসংখ্যা ২৪৩৩৫১; পুরুষ ১৩৫২০৬, মহিলা ১০৮১৪৫। মুসলিম ২২৫৪৮৭, হিন্দু ১৫২১৭, বৌদ্ধ ৬৮০, খ্রিস্টান ১৮৭৩ এবং অন্যান্য ৯৪।

প্রশাসন ২০০০ সালের ২৭ মে পাহাড়তলী ও পাঁচলাইশ থানার অংশ নিয়ে খুলশী থানা গঠিত হয়।

থানা
ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন মহল্লা জনসংখ্যা ঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিমি) শিক্ষার হার (%)
শহর গ্রাম শহর গ্রাম
২+২ (আংশিক) ৪৫ ২৪৩৩৫১ - ১৮৮৬৪ ৬১.৫৭ -
ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন
ওয়ার্ড নম্বর ও ইউনিয়ন আয়তন (বর্গ কিমি) লোকসংখ্যা শিক্ষার হার (%)
পুরুষ মহিলা
ওয়ার্ড  নং-০৮ (আংশিক) ২.৪৭ ২০৫৫০ ১৪৮১৪ ৭১.৫০
ওয়ার্ড  নং-০৯ (আংশিক) ৫.৯৩ ৩৮৪৮৮ ২৯৯৪৮ ৫৯.৬০
ওয়ার্ড  নং-১৩ ৩.২৬ ৩৭৬৬৭ ৩২০১৯ ৫৯.৮০
ওয়ার্ড  নং-১৪ ১.২৪ ৩৮৫০১ ৩১৩৬৪ ৫৫.৪০

সূত্র আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।

ঐতিহাসিক ঘটনাবলি ১৯৩০ সালের ১৮ এপ্রিল চট্রগ্রাম যুব বিদ্রোহীরা মাস্টরদা সূর্যসেনের নেতৃত্বে এ থানার একটি অস্ত্রাগার লুণ্ঠন করে।

মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচিহ্ন  স্মৃতিফলক ১ (বাটালী হিলের শিখা অনির্বাণ); বধ্যভূমি ১ (ফয়েজ লেক চক্ষু হাসপাতাল সংলগ্ন)।

উল্লেখযোগ্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান আবু হুমাইয়া মসজিদ, হযরত শাহ সুফী হাজী সৈয়দ আকরাম আলী (রঃ) মাযার শরীফ, কৈবল্য ধাম মন্দির, শীতলা কালি মন্দির, মতিঝর্ণা শিব মন্দির, বাঘঘোনা চানমারি রোডের বৌদ্ধ মন্দির উল্লেখযোগ্য।

KhulshiThana.jpg

শিক্ষার হার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড় হার ৬০.৩০%; পুরুষ ৬৫.৮০%, মহিলা ৫৩.২০%। উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান: ইউএসটিএস বিশ্ববিদ্যালয়, সরকারি ভেটেরেনারি বিশ্ববিদ্যালয়, সরকারি মহিলা কলেজ, ওমরগনি এম.ই.এস বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, পাহাড়তলী ডিগ্রি কলেজ, ইস্পাহানী স্কুল অ্যান্ড কলেজ, সরকারি বালিকা বিদ্যালয়, নাছিরাবাদ কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র।

গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ভারত ও রাশিয়ার দূতাবাস, টেলিভিশন ভবন, দামপাড়া পুলিশ লাইন, আবহাওয়া ও ভূকম্পন পরিমাপ কেন্দ্র, ঝাউতলা ওয়্যারলেস স্টেশন, রেলওয়ে ওয়ার্কশপ, পরিবেশ অধিদপ্তর ও জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ অফিস।

বিনোদন কেন্দ্র ফয়েজ লেক, কনকর্ড এ্যামিউজমেন্ট ওয়ার্ল্ড, রেলওয়ে জাদুঘর, চিড়িয়াখানা।

জনগোষ্ঠীর আয়ের প্রধান উৎস কৃষি ১.৯৮%, অকৃষি শ্রমিক ১.৪৬%, শিল্প ২.৯৯%, ব্যবসা ১৬.০৫%, পরিবহণ ও যোগাযোগ ১২.৬৯%, নির্মাণ ৩.৩৮%, ধর্মীয় সেবা ০.২২%, চাকরি ৪২.৩৫%, রেন্ট অ্যান্ড রেমিটেন্স ১.৭৮% এবং  অন্যান্য ১৭.১০%।

কৃষিভূমির মালিকানা ভূমিমালিক ২৭.২১% এবং ভূমিহীন ৭২.৭৯%।

হাটবাজার ও শপিং কমপ্লেক্স হাটবাজার: লালখান বাজার, বাঘঘোনা বাজার, মতিঝর্ণা বাজার, ঝাউতলা বাজার ও ডেবারপাড় বাজার উল্লেখযোগ্য। শপিং কমপ্লেক্স: কর্ণফুলি কমপ্লেক্স, হাইওয়ে প্লাজা, আমিন সেন্টার, আর্কেডিয়া শপিং কমপ্লেক্স, গণি কমপ্লেক্স, পুনাক হস্তশিল্প ও বস্ত্রশিল্প বিপণি, সিটি কর্পোরেশন মার্কেট উল্লেখযোগ্য।

বিদ্যুৎ ব্যবহার এ থানার সবক’টি মহল্লা বিদ্যুতায়ন কর্মসূচির আওতাধীন । তবে ৮৫.৩২% পরিবারের বিদ্যুৎ ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে।

পানীয়জলের উৎস নলকূপ ৩৬.০০%, পুকুর ০.৫৭%, ট্যাপ ৫৫.৫৩% এবং অন্যান্য ৭.৯০%।

স্যানিটেশন ব্যবস্থা এ উপজেলার ৬৬.৬৬% পরিবার স্বাস্থ্যকর এবং ৩০.৩২% পরিবার অস্বাস্থ্যকর ল্যাট্রিন ব্যবহার করে। ৩.০২% পরিবারের কোনো ল্যাট্রিন সুবিধা নাই।

স্বাস্থ্যকেন্দ্র চট্টগ্রাম ডায়াবেটিক হাসপাতাল, লায়ন্স চক্ষু হাসপাতাল, সাদার্ন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল হাসপাতাল, হলিক্রিসেন্ট হাসপাতাল, সাহিক মুক ও বধির হাসপাতাল।  [মোঃ আব্দুল বাতেন]

তথ্যসূত্র   আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো; খুলশী থানার মাঠ পর্যায়ের প্রতিবেদন ২০১০।