কোতোয়ালী মডেল থানা (বরিশাল মেট্রোপলিটন)


কোতোয়ালী মডেল থানা (বরিশাল মেট্রোপলিটন)  আয়তন: ৪০.৩৩ বর্গ কিমি। অবস্থান: ২২°৩৮´ থেকে ২০°৪৩´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৯০°১৬´ থেকে ৯০°২২´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ। সীমানা: উত্তরে কাউনিয়া এবং এয়ারপোর্ট থানা, দক্ষিণে নলছিটি ও বাকেরগজ্ঞ উপজেলা, পূর্বে ঝালকাঠি সদর উপজেলা, পশ্চিমে বন্দর থানা।

জনসংখ্যা ১৬৫০৫০; পুরুষ ৮৮৮২১, মহিলা ৭৬২২৯। মুসলিম ১৫০২৬২, হিন্দু ১২৬১৮, বৌদ্ধ ২০২৬, খ্রিস্টান ৭৪ এবং অন্যান্য ৭০।

জলাশয় প্রধান নদী: কীর্ত্তনখোলা।

প্রশাসন ২০০৭ সালে বরিশাল সদর উপজেলার ২০টি ওয়ার্ড এবং এ উপজেলার জাগুয়া ইউনিয়ন নিয়ে বরিশাল কোতোয়ালী থানা গঠিত হয়।

থানা
ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন মহল্লা জনসংখ্যা ঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিমি) শিক্ষার হার (%)
শহর গ্রাম শহর গ্রাম
২১ ৪৫ ১২৭৩১৫ ৩৭৭৩৫ ৪০৯৩ ৭৫.১২ ৬৮.০৪
ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন
ওয়ার্ড নম্বর ও ইউনিয়ন আয়তন (বর্গ কিমি) লোকসংখ্যা শিক্ষার হার (%)
পুরুষ মহিলা
ওয়ার্ড  নং ৬ ০.৩৭ ১৫৬১ ১৪১৯ ৮০.৭৬
ওয়ার্ড  নং ৮ ০.৫৬ ২৫০৪ ২৩৬৫ ৭১.৩১
ওয়ার্ড  নং ৯ ০.৮৭ ৬৯৫০ ৬৩৯৭ ৪৫.৮৮
ওয়ার্ড  নং ১০ ০.৭৯ ৫৭৭৫ ৪৭২৯ ৫৬.৬৬
ওয়ার্ড  নং ১১ ০.৫১ ৩৫২৫ ১৬৫১ ৭৯.৫৩
ওয়ার্ড  নং ১২ ০.৪৮ ২৩১৩ ১৫২৬ ৮৮.৯৩
ওয়ার্ড  নং ১৩ ০.৫৬ ২০৫৬ ৬৯৩ ৭৯.৬৮
ওয়ার্ড  নং ১৪ ০.৪৯ ২৭৮৪ ১৬৩০ ৭২.৯১
ওয়ার্ড  নং ১৫ ০.৪৭ ৩৪৫৪ ২৬০৭ ৫৮.২৩
ওয়ার্ড  নং ১৬ ১.০০ ৫৫৪০ ৪৮১৮ ৭১.১৫
ওয়ার্ড  নং ১৭ ০.৯১ ৩৮৬৭ ৩৯৩৯ ৮০.৪৬
ওয়ার্ড  নং ১৮ ০.৫৯ ২৮৩৪ ২৫০৪ ৮১.০৪
ওয়ার্ড  নং ১৯ ০.৬১ ২২২৩ ২১২৪ ৭৬.০২
ওয়ার্ড  নং ২০ ০.৯১ ৪০৬২ ৩৭২৬ ৭২.২১
ওয়ার্ড  নং ২১ ০.৭৭ ৩৪৫৮ ৩২৩৫ ৭৮.৫৪
ওয়ার্ড  নং ২২ ০.৭৯ ২৫৩৪ ২১৮৩ ৮৭.২১
ওয়ার্ড  নং ২৩ ০.৭৪ ৪৪৪৮ ৪১২৭ ৭৮.৯৮
ওয়ার্ড  নং ২৪ ০.৭০ ২৬৭৮ ২৫৭৩ ৭৮.৩৮
ওয়ার্ড  নং ২৫ ০.৯৯ ৩৪৫৩ ৩১১৬ ৭৯.৯১
ওয়ার্ড  নং ২৬ ১.০০ ৩১০৯ ২৮২৫ ৮৫.৩৩
জাগুয়া ইউনিয়ন ৬০ ২৬.২২ ১৯৬৯৩ ১৮০৪২ ৬৮.০৪

সূত্র আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।

উল্লেখযোগ্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান জামে কসাই মসজিদ, কালু শাহ রোড মসজিদ, জামে এবাদুল্লাহ মসজিদ, বরিশাল মুসলিম গোরস্তান মসজিদ মাদ্রাসা ও এতিমখানা, হযরত লেচুশাহ-এর মাযার, রামকৃষ্ণ মিশন, শংকর মঠ, অক্সফোর্ড মিশন গীর্জা, সেন্ট পিটার্স ক্যাথলিক চার্চ।

শিক্ষার হার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড় হার ৭৪.৮২%; পুরুষ ৭৭.১৭%, মহিলা ৭১.৯১%। উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান: বি.এম কলেজ (১৮৮৪), বরিশাল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট (১৯৬২), শেরে-বাংলা মেডিকেল কলেজ (১৯৬৯), অমৃতলাল দে কলেজ (১৯৯২), বরিশাল সরকারি কলেজ, সরকারি সৈয়দ হাতেম আলী কলেজ, বরিশাল সরকারি মহিলা কলেজ, বরিশাল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, বরিশাল জেলা স্কুল, ব্রজমোহন স্কুল, অক্সফোর্ড মিশন হাইস্কুল, উদয়ন হাইস্কুল, চরমোনাই মাদ্রাসা।

KotwaliThanaBarisal.jpg

সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান লাইব্রেরি ৩, সিনেমা হল ১, স্টেডিয়াম ১।

গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা বা দর্শনীয় স্থান বরিশাল কালেক্টরেট ভবন, জেলা জজ কোর্ট, মেট্রোপলিটন পুলিশ সদর দপ্তর, বাংলাদেশ স্থল ও নৌপরিবহণ কর্তৃপক্ষের কার্যালয়, পুলিশ লাইন, মৎস্য ভবন, ফায়ার সার্ভিস, বাংলাদেশ ব্যাংক, সিটি কর্পোরেশন অফিস, ধান গবেষণা কেন্দ্র, আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল, বাংলাদেশ বেতার বরিশাল কেন্দ্র, র‌্যাব সদর দপ্তর, বরিশাল স্টেডিয়াম, বিবির পুকুর, বেলস্ পার্ক।

জনগোষ্ঠীর আয়ের প্রধান উৎস কৃষি ৫.১৮%, অকৃষি শ্রমিক ৫.৪৭%, শিল্প ১.৯৮%, ব্যবসা ২৮.৪২%, পরিবহণ ৭.১২%, নির্মাণ ৪.৩৪%, চাকুরি ৩০.১৮%, ধর্মীয় সেবা ০.৩৯%, রেন্ট অ্যান্ড রেমিটেন্স ২.২৯% এবং অন্যান্য ১৪.৬৩%।

কৃষিভূমির মালিকানা ভূমিমালিক ৪২.৬৯%, ভূমিহীন ৫৭.৩১%।

প্রধান কৃষি ফসল ধান, গম, পান, আখ, শাকসবজি।

বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় ফসলাদি তিল, তিসি, সরিষা, কলাই, মিষ্টি আলু, পাট।

প্রধান ফল-ফলাদি আম, কাঁঠাল, লিচু, পেঁপে, জাম, নারিকেল, সুপারি।

মৎস্য, গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগির খামার এ থানায় পর্যাপ্ত পরিমানে মৎস্য, গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগির খামার রয়েছে।

কুটিরশিল্প স্বর্ণশিল্প, লৌহশিল্প, কাঠের কাজ, ওয়েল্ডিং প্রভৃতি।

হাটবাজার  ভেনাস মার্কেট, বাংলা বাজার, পুরান বাজার, নতুন বাজার, চৌমাথা বাজার, মৎস অবতরণ কেন্দ্র এবং পাইকারী বাজার।

হোটেল ও রেস্তোরা  রোজ গার্ডেন, ইয়ান থাই, কীর্ত্তনখোলা গার্ডেন।

বিদ্যুৎ ব্যবহার এ থানার ৮০.৪৭% পরিবারের বিদ্যুৎ ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে।

পানীয়জলের উৎস নলকূপ ৭১.০২%, ট্যাপ ২৫.৪৬%, পুকুর ১.৯১% এবং অন্যান্য ১.৬১%।

স্যানিটেশন ব্যবস্থা এ থানার ৮২.৪৫% পরিবার স্বাস্থ্যকর এবং ১৪.৪০% পরিবার অস্বাস্থ্যকর ল্যাট্রিন ব্যবহার করে। ৩.১৫% পরিবারের কোনো ল্যাট্রিন সুবিধা নেই।

স্বাস্থ্যকেন্দ্র হাসপাতাল ২, পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্র ৭, বেসরকারি স্বাস্থ্যকেন্দ্র ১১। উল্লেখযোগ্য স্বাস্থ্যকেন্দ্র: শেরে-বাংলা মেডিকেল কলেজ, ক্যাপ্টেন নাজিবউদ্দিন ক্লিনিক।

এনজিও ব্র্যাক, আশা, প্রশিকা, কারিতাস। [আক্তারউদ্দিন চৌধুরী]

তথ্যসূত্র আদমশুমারী রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।