কৃষ্ণনাথ সার্বভৌম


কৃষ্ণনাথ সার্বভৌম (১৭শ শতক)  সংস্কৃত কবি ও পন্ডিত। তাঁর জন্ম  ফরিদপুর জেলার কোটালিপাড়ার পশ্চিমপাড় গ্রামে। পিতা দুর্গাদাস চক্রবর্তীও ছিলেন একজন সংস্কৃত পন্ডিত। কৃষ্ণনাথ তাঁর পান্ডিত্যের স্বীকৃতিস্বরূপ ‘সার্বভৌম’ উপাধিতে ভূষিত হন এবং এর দ্বারা সর্বভারতীয়ভাবে তাঁর পান্ডিত্য স্বীকৃত হয়।

কৃষ্ণনাথের সহধর্মিণী বৈজয়ন্তী দেবীও ছিলেন সংস্কৃত পন্ডিত এবং কবি-প্রতিভার অধিকারিণী। তিনি আনন্দলতিকা (১৬৫২) নামক কাব্য রচনায় স্বামীকে সহায়তা করেন। দেবীশতকম্ (১৯৪৪) কৃষ্ণনাথের অপর একখানি সংস্কৃত কাব্য।

আনন্দলতিকা কাব্যে পাঁচটি কুসুমে ৭৬২টি শ্লোক এবং কিছু গদ্য সংলাপ আছে। এতে কৃষ্ণলীলাশ্রিত আধ্যাত্মিক রসমাধুর্যের পাশাপাশি মানবিক প্রেম-বিরহের কথাও স্থান পেয়েছে। কাব্যটি কলকাতার সংস্কৃত সাহিত্য পরিষৎ পত্রিকায় ধারাবাহিকভাবে (১৩শ-১৪শ বর্ষ) প্রকাশিত হয়। দেবীশতকম্ও পরিষৎ কর্তৃক প্রকাশিত হয়।  [রবীন্দ্রনাথ সরকার]