কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ


কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ কুমিল্লার কুচাইতলী এলাকায় অবস্থিত চট্টগ্রাম বিশববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত, বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় অনুমোদিত এবং বাংলাদেশ মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিল স্বীকৃত একটি সরকারী  চিকিৎসা মহাবিদ্যালয়। মেডিকেল এসিস্টেন্ট্ ট্রেনিং স্কুলের উন্নীতকরণের মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকার কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠা করে। ১৯৮১-৮২ সনে  ৩০ জন ছাত্র নিয়ে শুরু হলেও এটি বন্ধ হয়ে যায় এবং ১৯৯১-৯২ সনে ৫০ জন ছাত্র নিয়ে পুনরায় শুরু হয়। পরবর্তীতে প্রতিবৎসর ছাত্র ভর্তির সংখ্যা ১০০ জনে ঊন্নীত করা হয়।  চিকিৎসা শিক্ষা ও বাস্তব অভিজ্ঞতার প্রয়োজন মিটাতে রয়েছে ৫০০ শয্যার হাসপাতাল। কলেজ  ও হাসপাতাল একে অন্যের পরিপূরক হিসেবে কাজ করে। কলেজের সর্বাঙ্গিন দায়িত্বে থাকেন একজন প্রিন্সিপাল আর হাসপাতালের সর্বাঙ্গিন দায়িত্বে থাকেন একজন পরিচালক। পাঁচ বৎসর মেয়াদী শিক্ষা কার্যক্রম সাফল্যজনকভাবে শেষ করে ছাত্ররা চিকিৎসাশাস্ত্রে এম্.বি.বি.এস্ স্নাতক ডিক্রি প্রাপ্ত হন। পূর্ণাঙ চিকিৎসকরূপে জনগনের চিকিৎসা দেয়ার অধিকার অর্জন করতে সবাইকে  ডিক্রি  প্রাপ্তির পর কোন স্বীকৃত হাসপাতালের বিভিন্ন বিভাগে এক বৎসর মেয়াদী   বাস্তব  অভিজ্ঞতা অর্জন  করে  বাংলাদেশ  মেডিকেল  কাউন্সিল  হতে  লাইসেন্সপ্রাপ্ত  হতে হয়।  [মুসলেহ উদ্দিন আহমেদ]