কলিকাতা স্কুল সোসাইটি


ক্যালকাটা স্কুল সোসাইটি  শিক্ষাবিষয়ক একটি প্রতিষ্ঠান। কয়েকজন দেশিয় ও ইউরোপীয় শিক্ষানুরাগীর যৌথ উদ্যোগে ১৮১৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর কলকাতায় এটি প্রতিষ্ঠিত হয়।  কলকাতা শহরে তখন ব্যক্তি ও গোষ্ঠীর উদ্যোগে পুরাতন ও নতুন ধারায় অনেক স্কুল গড়ে ওঠে। সেগুলির মধ্যে সমন্বয় সাধন করে একটি অভিন্ন শিক্ষাপদ্ধতি প্রবর্তন, পুরাতন স্কুলের সংস্কার ও উন্নয়ন সাধন এবং প্রয়োজনবোধে নতুন স্কুল স্থাপন ছিল এর লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য।

সূচনালগ্নে সোসাইটির পরিচালনা পরিষদের সদস্য ছিলেন ২৪জন। তাঁদের মধ্যে আটজন ছিলেন দেশিয়। তাঁরা হলেন মৌলবি মির্জা কাজিম আলী খান, মৌলবি বিলায়েত হোসেন, মৌলবি দরবেশ আলী, মৌলবি নুরুন্নবী, রাধামাধব বন্দ্যোপাধ্যায়, রসময় দত্ত,  রাধাকান্ত দেব (১৭৮৪-১৮৬৭) ও উমাচরণ বন্দ্যোপাধ্যায়। মির্জা কাজিম আলী খান ছিলেন সেক্রেটারি এবং এম মন্টেগু করেস্পন্ডিং সেক্রেটারি। সোসাইটির উদ্বোধনী সভায় জে.এইচ হ্যারিন্টন সভাপতির ভাষণে দেশিয় দক্ষ শিক্ষক ও অনুবাদক তৈরির ওপর জোর দেন, যাতে ইউরোপের বিদ্যা ও বিজ্ঞান দেশিয় ভাষায় অনুবাদের মাধ্যমে প্রচার ও শিক্ষা দেওয়া সম্ভব হয়।

সোসাইটির প্রথম বার্ষিক রিপোর্ট থেকে জানা যায়, এক বছরে ২,৪০০জন ছাত্রকে সোসাইটির তত্ত্বাবধানে আনা হয়; কলকাতার দেশিয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলির সংস্কার সাধন করা হয়; ভাল ছাত্রদের শিক্ষার জন্য একটি ইংরেজি বিদ্যালয় স্থাপন করা হয় এবং বয়স্ক শিক্ষা ও কারিগরি শিক্ষাদানের কথা ঘোষণা করা হয়। ১৮২৪ সালে ৬৬টি বিদ্যালয় সোসাইটির তত্ত্বাবধানে আসে। এসব বিদ্যালয়ে ছাত্রসংখ্যা ছিল ৩,৪৮৭জন। এভাবে কয়েক বছর সফলতার সঙ্গে কার্যক্রম পরিচালনার পর সোসাইটি আর্থিক সংকটে পড়ে, তবে সরকারি অনুদানের মাধ্যমে আরও কিছুকাল কার্যক্রম অব্যাহত থাকে। অতঃপর ভাষা ও শিক্ষা সম্পর্কে সরকারি নীতির পরিবর্তন, প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যপন্থিদের অন্তর্বিরোধ এবং দেশিয় ব্যক্তিদের উৎসাহের অভাবে ১৮৩৩ সালে প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ হয়ে যায়।

ক্যালকাটা স্কুল সোসাইটির সাফল্যে অনুপ্রাণিত হয়ে কলকাতার বাইরেও অনুরূপ কয়েকটি সোসাইটি প্রতিষ্ঠিত হয়, যেমন: ঢাকা স্কুল সোসাইটি (১১ নভেম্বর ১৮১৮) ও মুর্শিদাবাদ স্কুল সোসাইটি (১৬ জুন ১৮১৯)।  [ওয়াকিল আহমদ]