কলন্দরিয়া


কলন্দরিয়া সুফি তরিকাসমূহের অন্যতম। ইরানে উদ্ভূত এ তরিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পর্কে সঠিক কোনো তথ্য পাওয়া যায় না। কারও মতে স্পেনের জনৈক ইউসুফ কলন্দরিয়া এ তরিকার প্রতিষ্ঠাতা। আবার কারও মতে পারস্যের শায়খ জামালউদ্দীন আস-সাবী এর প্রতিষ্ঠাতা।

মধ্য এশিয়ায় উদ্ভূত হলেও কলন্দরিয়া তরিকা ভারতীয়, বিশেষত বৌদ্ধ ধারণা দ্বারা প্রভাবিত। ‘কলন্দর’ শব্দটির উদ্ভবও ভারতে বলে মনে করা হয়। এর অর্থ ভ্রাম্যমাণ ফকির। পানিপথের হযরত শরফউদ্দীন-বু-আলী শাহ কলন্দর এ সম্প্রদায়ের ভারতীয় আদি প্রতিষ্ঠাতা। এ সম্প্রদায়ের বাণী বহন করে  ইসলাম প্রচারের উদ্দেশ্যে বাংলায় যাঁরা প্রবেশ করেন, তাঁদের মধ্যে হুগলি জেলার পান্ডুয়ার শাহ শফীউদ্দিনকে প্রাচীনতম সুফি মনে করা হয়।

কলন্দরিয়া সুফিদের বৈশিষ্ট্য হলো তাঁরা কোনো স্থানে স্থায়িভাবে বসবাস করেন না; নানা স্থান ভ্রমণের মাধ্যমে জীবন অতিবাহিত করেন। তাঁদের প্রত্যেকেই কোনো না কোনো প্রাণী লালন-পালন করেন এবং সেগুলি সঙ্গে নিয়ে দেশ ভ্রমণ করেন। এ তরিকার অনুসারীরা হাতে এবং কেউ কেউ পায়ে লোহার বালা বা শিকল পরে। তাঁদের গোঁফ, চুল ও দাড়ি কাটা বা রাখা বাধ্যতামূলক নয়। তাঁরা ফরজ ও ওয়াজিব ইবাদতে শিথিলতা প্রদর্শন করে ও পার্থিব বস্ত্তর প্রতি আগ্রহ প্রকাশ করে না। পারস্য, সিরিয়া, তুরস্ক, আফগানিস্তান, পাকিস্তান, ভারত ও বাংলাদেশ পর্যন্ত এ তরিকা সম্প্রসারিত হয়।  [মুহাম্মদ রুহুল আমীন]