কবিকর্ণপূর


কবিকর্ণপূর (আনু.১৫২৫-?)  চৈতন্যভক্ত, বৈষ্ণব পন্ডিত ও সংস্কৃত কবি; প্রকৃত নাম পরমানন্দ সেন। পশ্চিমবঙ্গের নৈহাটীর নিকটবর্তী কাঞ্চনপল্লী বা কাঁচরাপাড়ায় তাঁর জন্ম। পিতা শিবানন্দ সেন ছিলেন চৈতন্যদেবের পার্ষদ ও শিষ্য এবং সংস্কৃত কবি। তাঁদের আদি নিবাস ছিল শ্রীহট্টের (সিলেট) আদপাশায়।

কর্ণপূর অল্প বয়সেই কবিত্বশক্তির অধিকারী হন। কথিত আছে যে, মাত্র সাত বছর বয়সে তিনি একটি শ্লোকে ব্রজাঙ্গনাদের কর্ণভূষণের বর্ণনা করে চৈতন্যদেবকে শুনিয়েছিলেন। এতে  চৈতন্যদেব মুগ্ধ হয়ে তাঁকে ‘কবিকর্ণপূর’ (কবিগণের কর্ণভূষণ) উপাধিতে ভূষিত করেন। সে থেকে তিনি এ নামেই পরিচিত। চৈতন্যদেবের প্রিয়পাত্র শ্রীনাথ ছিলেন কবিকর্ণপূরের গুরু। কর্ণপূরের উল্লেখযোগ্য রচনা হলো:  চৈতন্যচরিতামৃত (সংস্কৃত মহাকাব্য, ১৫৪২),  চৈতন্যচন্দ্রোদয় (নাটক, ১৫৭২), গৌরগণোদ্দেশদীপিকা (১৫৭৬), অলঙ্কারকৌস্ত্তভ, আনন্দবৃন্দাবনচম্পূ প্রভৃতি।

প্রথম দুটি চৈতন্যজীবনী। কর্ণপূর চৈতন্যদেবকে প্রত্যক্ষ করেছিলেন বলে তাঁর রচিত চৈতন্যজীবনী অধিকতর বিশ্বস্ত বলে মনে করা হয়। গৌরগণোদ্দেশদীপিকা গ্রন্থে চৈতন্যদেবের ভক্তরা কৃষ্ণলীলায় কে কোন ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন তা বর্ণনা করা হয়েছে। অলঙ্কারকৌস্ত্তভ দশ অধ্যায়ে বিভক্ত একখানি অলঙ্কারগ্রন্থ এবং আনন্দবৃন্দাবনচম্পূ বাইশ স্তবকে বিভক্ত একখানি কাব্য।  [কানাইলাল রায়]