কদম মুবারক মসজিদ


কদম মুবারক মসজিদ, চট্টগ্রাম

কদম মুবারক মসজিদ  চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের জামাল খান মহল্লায় অবস্থিত। এ মসজিদের নিকটবর্তী লোকালয় কদম মুবারক নামে পরিচিত। মসজিদের মূলণ কক্ষে রক্ষিত এক শিলাখন্ডে হযরত মুহম্মদ সা:এর একজোড়া পবিত্র পদচিহ থেকে এ নামকরণ ঘটেছে। এক উৎকীর্ণলিপি থেকে জানা যায় যে, মুহম্মদ ইয়াসিন নামে এক স্থানীয় ফৌজদার মুগল সম্রাট মুহম্মদ শাহ এর শাসনামলে ১১৫৬ হিজরিতে (১৭২৩ খ্রি.) এ মসজিদ নির্মাণ করেন।

উচু ভিতের উপর নির্মিত আয়তাকার এ মসজিদের ছাদ তিনটি গম্বুজ দ্বারা ও দুটি ভল্ট দ্বারা আচ্ছাদিত। চারকোণে রয়েছে তিন-স্তর বিশিষ্ট অষ্টভুজী মিনার বা বুরুজ। এ মিনারগুলির প্রতিটির শীর্ষে রয়েছে ক্ষুদ্র গম্বুজ ও তারও শীর্ষে গোলাকার শীর্ষালঙ্করণ (finial)। আয়তাকার মসজিদের কক্ষের উত্তর ও দক্ষিণ দিকে রয়েছে একটি করে পার্শ্বকক্ষ। প্রার্থনা কক্ষের ছাদে আছে তিনটি গম্বুজ এবং এর পার্শ্বকক্ষ দুটি খিলান ছাদ দ্বারা আবৃত। মসজিদ গৃহের বাইরের দিকের মাপ হচ্ছে ১৩ মি × ৭.৪২ মি। এর সঙ্গে বাড়তি পার্শ্বকক্ষ দুটির দৈর্ঘ্য ২৩.১৬ মিটার। মসজিদের পূর্ব দিকে এক সুপরিসর খোলা আঙিনা ছিল।

অলঙ্কৃত কুলুঙ্গি সারিতে সাজানো ও দুটি অষ্টভুজী বুরুজ বেষ্টিত এ মসজিদের সম্মুখভাগটি অত্যন্ত মনোমুগ্ধকর ও আকর্ষণীয়। মূল মসজিদগৃহের রয়েছে পাঁচটি দরজা, তিনটি দরজা সম্মুখভাগের দেওয়ালে ও একটি করে দরজা পার্শ্বকক্ষের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করেছে। পার্শ্বকক্ষগুলিরও নিজস্ব প্রবেশপথ ও জানালা রয়েছে। মিহরাব রয়েছে পশ্চিম দেওয়ালের সঙ্গে। মসজিদের ভেতরের দেওয়ালগুলি আয়তাকার নানা খোপ বা প্যানেল ও কুলুঙ্গি বা তাক দ্বারা অলঙ্কৃত। মসজিদ কক্ষটি তিনটি ‘বে’তে বিভক্ত এরং পশ্চিম দেওয়ালের কেন্দ্রে একটি কেন্দ্রীয় মিহরাব রয়েছে। বর্তমানে সম্পূর্ণ কদম রসুল কমপ্লেক্সটিকে ঘিরে গড়ে উঠেছে মসজিদ, মাদ্রাসা, কবরস্থান পভৃতি আধুনিক অবকাঠামো।  [শামসুল হোসেন]