ওয়াভেল, লর্ড


লর্ড ওয়াভেল

ওয়াভেল, লর্ড (১৮৮৩-১৯৫০)  ১৯৪৩ সালের জুন থেকে ১৯৪৭ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ভারতবর্ষের ভাইসরয় ও গভর্নর জেনারেল। আর্চিবল্ড্ পারসিভাল ওয়াভেল ১৮৮৩ সালের ৫ মে ইংল্যান্ডের কোলচেস্টার-এ জন্মগ্রহণ করেন। উইনচেস্টার ও স্যান্ডহার্স্ট-এর রয়্যাল মিলিটারি কলেজে শিক্ষালাভ করার পর দক্ষিণ আফ্রিকার যুদ্ধ ও ভারতের সীমান্তযুদ্ধে তিনি অংশগ্রহণ করেন। ১৯৩৩ সালে তিনি মেজর জেনারেল হন। ব্রিটিশ বাহিনীতে এ পদমর্যাদাসম্পন্ন অফিসারদের মধ্যে তিনিই ছিলেন সর্বকনিষ্ঠ। ১৯৩৯ সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হওয়ার পর মধ্যপ্রাচ্যে ব্রিটিশ বাহিনীর প্রধান হন। পরে ১৯৪১ সালে তাঁকে ব্রিটিশ ভারতীয় বাহিনীর প্রধানের দায়িত্ব দেওয়া হয়। বার্মা, মালয়েশিয়া ও ডাচ ইস্ট ইন্ডিজ-এ তিনি মিত্রবাহিনীর সর্বাধিনায়কের দায়িত্বপ্রাপ্ত হন। ১৯৪২ সালে তাঁকে ফিল্ড মার্শাল পদে উন্নীত করা হয়। ১৯৪৩ সালের জুন মাসে তিনি ভারতের ভাইসরয় ও গভর্নর জেনারেল নিযুক্ত হন।

গভর্নর জেনারেল হিসেবে লর্ড ওয়াভেল-এর প্রথম কাজ ছিল ১৯৪৩-এর বাংলার দুর্ভিক্ষ রোধ করা। তাঁর শাসনামলে ভারতীয় স্বরাজের জন্য তিনি আন্তরিকভাবে কাজ করেন। তাঁর আচরণ ছিল রাষ্ট্রনায়কোচিত, সেনাসুলভ নয়। যুদ্ধের পর তিনি কংগ্রেস ও মুসলিম লীগ-এর নেতাদেরকে সিমলায় আয়োজিত এক সম্মেলনে আহবান করেন; তাঁর উদ্দেশ্য ছিল ভারতের রাজনৈতিক সমস্যাবলির একটি শান্তিপূর্ণ সমাধানসূত্র খুঁজে বের করা। দুর্ভাগ্যবশত দুটি দলের নেতৃত্বের অনমনীয় মনোভাবের কারণে কোনো মতৈক্যে পৌঁছানো সম্ভব হয়নি। ১৯৪৬ সালের গোড়ার দিকে তিনি বোম্বাই-এর নৌ-বিদ্রোহ দমন করেন। এ বিদ্রোহ ভারতে ব্রিটিশ শক্তির অন্তর্নিহিত দুর্বলতার বিষয়ে চোখ খুলে দেয়। ওয়াভেলের শাসনামলে ১৯৪৬ সালে কেবিনেট মিশন ভারতে আসে কিন্তু কংগ্রেস ও মুসলিম লীগ মিশনের প্রস্তাব গ্রহণ করেনি।

ওয়াভেল এরপর জওহরলাল নেহরুর নেতৃত্বে একটি অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠন করেন। এতে অবশ্য কাজ হয় নি। স্বতন্ত্র মুসলিম রাষ্ট্রের দাবিতে মুসলিম লীগ প্রত্যক্ষ সংগ্রাম দিবস-এর ডাক দেয়। এর ফলে পশ্চিম বঙ্গ ও বিহারে মারাত্মক সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বাধে। লর্ড ওয়াভেল তাঁর অসাধারণ সামরিক প্রজ্ঞা ও গুণাবলি নিয়েও আগেভাগে প্রতিরোধ করতে কিংবা দ্রুত এ দাঙ্গা থামাতে সক্ষম হন নি। রাজনৈতিক সমাধানের সকল প্রয়াস ব্যর্থ হওয়ার পর ব্রিটেনের নতুন শ্রমিক দলীয় সরকার ভারতীয়দের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। লর্ড ওয়াভেল ১৯৪৭ সালে দেশে ফিরে যান। তাঁর উত্তরসূরি হয়ে আসেন লর্ড মাউন্টব্যাটেন

১৯৫০ সালের ২৪ মে ওয়াভেল লন্ডনে তাঁর মৃত্যু হয়। ওয়াভেল এর  প্রধান প্রধান প্রকাশনার মধ্যে রয়েছে The Palestine Campaigns (1928); Allenby: A Study in Greatness (1940); Other Men’s Flowers (1944); The Good Soldier (1948) এবং Soldiers and Soldiering (1953)।  [কে.এম মোহসীন]