ঐতিহাসিক চিত্র


ঐতিহাসিক চিত্র সম্পূর্ণরূপে ইতিহাস বিষয়ক প্রথম বাংলা সাময়িক পত্রিকা। স্থানীয় উৎসসমূহ সংগ্রহের মাধ্যমে দেশের ইতিহাস রচনার জাতীয়তাবাদী প্রেরণা থেকেই এর উদ্ভব। ১৮৯৯ সালের জানুয়ারি মাসে অক্ষয়কুমার মৈত্রেয় (১৮৬১-১৯৩০) এ সাময়িক পত্রিকা শুরু করেন, এবং এর প্রথম সংখ্যা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এর লেখা ‘ভূমিকা’সহ বের হয়। ‘ঐতিহাসিক চিত্র’ শীর্ষক নিবন্ধের মাধ্যমে কবি পত্রিকাটিকে আশীর্বাদ জানান এবং আশা ব্যক্ত করেন যে, আমাদের নিজস্ব ইতিহাস সংগ্রহের এ প্রচেষ্টা দেশের জনগণের মানসিক স্থবিরতা দূর করতে অনেকটা সাহায্য করবে।

রাজশাহী থেকে ত্রৈমাসিক হিসেবে অক্ষয়কুমার এ পত্রিকা প্রকাশ করেন। উপেন্দ্রকিশোর রায় চৌধুরী এর প্রচ্ছদ অংকন করেন। চারটি সংখ্যা প্রকাশের পর অক্ষয়কুমার এটি চালিয়ে যেতে পারেননি। আরেকজন ইতিহাসবিদ নিখিলনাথ রায় (১৮৬৫-১৯৩২) সম্পাদনার দায়িত্বভার গ্রহণ করেন এবং এক বছরের জন্য (বাংলা ১৩১১ সনের ভাদ্র মাস থেকে ১৩১২ সনের শ্রাবণ মাস পর্যন্ত, ১৯০৪-০৫) মাসিক পত্রিকা হিসেবে এটি প্রকাশ করেন। এ পর্যায়ে কলকাতার মেটক্যাফ প্রেস এর প্রকাশনা চলিয়ে যেতে সাহায্য করতে এগিয়ে আসে। বাংলা ১৩১৪ সনের বৈশাখ মাসে (১৯০৭) নিখিলনাথ তৃতীয় পর্যায় শুরু করেন, এবং বাংলা ১৩১৮ সনের চৈত্র মাস (১৯১২) পর্যন্ত এর প্রকাশনা চালিয়ে যান। এর পর সাময়িক পত্রিকাটির প্রকাশ বন্ধ হয়ে যায়।

এর জীবৎকাল সংক্ষিপ্ত হলেও ইতিহাসের উপকরণসমূহ সংগ্রহ ও সংরক্ষণকে উৎসাহিত করতে ঐতিহাসিক চিত্র গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছে। যদিও ঐতিহাসিক চিত্রের পূর্বে স্থানীয় ইতিহাসের গবেষণামূলক কিছু কাজ ইতস্তত বিক্ষিপ্তভাবে সাময়িক পত্রিকা ও পুস্তকসমূহে প্রকাশিত হয়েছে বটে, তবে পাঠকের কাছে এরূপ গবেষণামূলক রচনাবলি সুসঙ্গতভাবে উপস্থাপনের ব্যাপারে এটিই ছিল প্রথম আন্তরিক পারস্পরিক সহযোগিতামূলক প্রচেষ্টা। ভারতীয় ইতিহাসের উপর নিত্যনৈমিত্তিক গবেষণাকর্ম ছাড়াও প্রত্নতাত্ত্বিক বিষয়াবলি এ পত্রিকায় নিয়মিতভাবে আলোচিত হতো। স্থানীয় ইতিহাস রচনার উপকরণসমূহ অতি যত্নসহকারে সংগ্রহ করে সাময়িক পত্রিকাটিতে প্রাঞ্জল ভাষায় উপস্থাপন করা হতো। এতে সন্দেহের অবকাশ নেই যে, ঐতিহাসিক চিত্র  মাতৃভাষায় প্রত্নতাত্ত্বিক ও ঐতিহাসিক গবেষণার সুষ্ঠু রীতি প্রবর্তন করে।

নিখিলনাথ রায় নিজেই এতে অনেকগুলি গুরুত্বপূর্ণ নিবন্ধ লিখেন। অন্য লেখকদের মধ্যে ছিলেন অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়,  কেদারনাথ জুমদার, যোগেন্দ্রনাথ গুপ্ত, সখারাম গণেশ দেউসকার, সতীশচন্দ্র মিত্র, আনন্দনাথ রায়, অশ্বিনীকুমার সেন প্রমুখ।

কলকাতার ন্যাশনাল লাইব্রেরিতে ঐতিহাসিক চিত্রের পুরো সেট রক্ষিত আছে।  [ইন্দ্রজিৎ চৌধুরী]