উযু


উযু  আরবি শব্দ, অর্থ পরিচ্ছন্নতা। ইসলামী শরিআত অনুযায়ী সালাত আদায়,  আল-কুরআন তেলাওয়াত প্রভৃতির পূর্বে উযুর সাহয্যে অপবিত্রতা থেকে মুক্ত হওয়া যায়। উযুতে বিধিবদ্ধ পদ্ধতিতে মুখমন্ডল ও হাত-পা ধোয়া হয়। উযুর সময় চারটি কাজ ফরয: মুখমন্ডল ধৌত করা, কনুইসহ দু হাত ধৌত করা, সিক্ত হস্তে মাথার অন্তত চারভাগের এক ভাগ মাস্হ করা  এবং গোড়ালিসহ দু’পা ধৌত করা। বিধানসম্মতভাবে উযু করার উপযোগী পানির বিবরণ ফিক্হশাস্ত্রে দেওয়া হয়েছে। উপযুক্ত পানির অভাব, অসুস্থতা কিংবা কোনোরূপ শারীরিক সমস্যার কারণে প্রথাগতভাবে উযু করা সম্ভব না হলে পবিত্র হওয়ার নিয়্যাত করে পবিত্র বালি অথবা মৃত্তিকা দ্বারা মুখমন্ডল ও কনুইসহ দু’বাহু মাস্হ করলেই উযুর ফল পাওয়া যায়। উযুর এ পদ্ধতিকে তায়াম্মুম বলে। কয়েকটি কারণে উযু ভঙ্গ হয়, যেমন মলমূত্র ত্যাগ, বায়ু নিঃসরণ, রক্তক্ষরণ, বমি, অজ্ঞান হওয়া বা মতিবিভ্রম ঘটা, যৌনমিলন ও সালাতে অট্টহাসি। সাধারণত মসজিদ অথবা সালাত আদায় করার স্থানে উযু করার উপযুক্ত সুযোগ-সুবিধা থাকে।সুন্নী মাজহাবের মতে উযুতে পদদ্বয় ধৌত করার পরিবর্তে মাস্হ করা শরিআতে অনুমোদিত। মুকিম বা স্থায়ী বাসিন্দার জন্য চবিবশ ঘণ্টা এবং মুসাফিরের জন্য বাহাত্তর ঘণ্টা পর্যন্ত উযু করার সময় পা ধোয়ার পরিবর্তে মাস্হ-এর অনুমতি আছে।  [এ.আর.এম আলী হায়দার]