উত্তরখান থানা


উত্তরখান থানা (ঢাকা মেট্রোপলিটন)  আয়তন: ২০.০৯ বর্গ কিমি। অবস্থান: ২৩°৫০´ থেকে ২৩°৫৪´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৯০°২৪´ থেকে ৯০°২৮´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ। সীমানা: উত্তরে টঙ্গী খাল ও গাজীপুর সদর উপজেলা, দক্ষিণে খিলক্ষেত ও দক্ষিণখান থানা, পূর্বে বালু নদী ও কালীগঞ্জ (গাজীপুর) উপজেলা, পশ্চিমে গাজীপুর সদর উপজেলা ও দক্ষিণখান থানা।

জনসংখ্যা ৫২০১৪, পুরুষ ২৭২৫৪; মহিলা ২৪৭৬০। মুসলিম ৪৯৪৮৮, হিন্দু ২১১৪, বৌদ্ধ ৪০৮ এবং অন্যান্য ৪।

জলাশয় বালু প্রধান নদী ও টঙ্গী খাল উল্লেখযোগ্য।

প্রশাসন ২০০৬ সালে ১টি ইউনিয়ন ও ১৪টি মৌজা নিয়ে উত্তরখান থানা গঠিত হয়। উত্তরখান ইউনিয়নের নামানুসারে এই থানার নামকরণ করা হয়েছে।

থানা
ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন মহল্লা জনসংখ্যা ঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিমি) শিক্ষার হার (%)
শহর গ্রাম শহর গ্রাম
১৪ - ৫২০১৪ ২৫৯০ - ৬৪.৫৮
ইউনিয়ন
ইউনিয়নের নাম ও জিও কোড আয়তন (বর্গ কিমি) লোকসংখ্যা শিক্ষার হার (%)
পুরুষ মহিলা
উত্তরখান ইউনিয়ন ৭৬ ২০.০৯ ২৭২৫৪ ২৪৭৬০ ৬৪.৫৮

সূত্র আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।

প্রাচীন নিদর্শনাদি ও প্রত্নসম্পদ  কবির শাহ মাযার।

ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান মসজিদ ৬১, মন্দির ৫, গীর্জা ২।

শিক্ষার হার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড় হার ৬৪.৫৮%; পুরুষ ৬৮.৯৮%, মহিলা ৫৯.৭৭%। কলেজ ২, উচ্চ বিদ্যালয় ৬, প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩৯, মাদ্রাসা ১২।

সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান সংগীত একাডেমি ১, খেলার মাঠ ৩।

UttarKhanThana.jpg

জনগোষ্ঠীর আয়ের প্রধান উৎস কৃষি ১২.৫৭%, কৃষি শ্রমিক ৪.৪০%, অকৃষি শ্রমিক ২.৯০%, শিল্প ০.৯৫%, ব্যবসা ২৫.৫০%, পরিবহন ৬.৫৬%, নির্মাণ ৪.৭৫%, চাকরি ২৬.৫৮%, ধর্মীয় সেবা ০.১৩%, রেন্ট অ্যান্ড রেমিট্যান্স ২.০৬% এবং অন্যান্য ১৩.৬০%।

কৃষিভূমির মালিকানা ভূমিমালিক ৪৯.৪৬%, ভূমিহীন ৫০.৫৪%।

প্রধান কৃষি ফসল ধান।

বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় ফসল  পাট।

প্রধান ফল-ফলাদিব আম, কাঁঠাল, জাম, পেয়ারা।

গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগির খামার  গবাদিপশু ১, হাঁস-মুরগি ৪০।

যোগাযোগ বিশেষত্ব মোট সড়ক ৩২.৭৯ কিমি; খেয়াঘাট ৫।

বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় সনাতন বাহন পালকি।

শিল্প ও কলকারখানা রাসায়নিক কারখানা ৩, পোশাক শিল্প ১৬, অন্যান্য ১২।

হাটবাজার ও মেলা হাটবাজার ১৫, মেলা ৫।

প্রধান রপ্তানিদ্রব্য  তৈরি পোশাক।

বিদ্যুৎ ব্যবহার এ থানার সবক‘টি ইউনিয়ন বিদ্যুতায়ন কর্মসূচির আওতাধীন। তবে ৮৯.১৭% পরিবারের বিদ্যুৎ ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে।

পানীয়জলের উৎস ট্যাপ ৯.০১%, নলকূপ ৮৮.৭৬%, পুকুর ০.২১% এবং অন্যান্য ২.০২%।

স্যানিটেশন ব্যবস্থা ৮৪.৪৪% পরিবার স্বাস্থ্যকর এবং ১৪.০১% পরিবার অস্বাস্থ্যকর ল্যাট্রিন ব্যবহার করে। ১.৫৫% পরিবারের কোনো ল্যাট্রিন সুবিধা নেই।

স্বাস্থ্যকেন্দ্র স্বাস্থ্যকেন্দ্র ১।

এনজিও ব্র্যাক, আশা।  [শরীফ খুরশীদ আলম]

তথ্যসূত্র   আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো; উত্তরখান থানা মাঠ পর্যায়ের প্রতিবেদন ২০০৮।