ঈগল


ঈগল (Eagle)  বড় আকারের দিবাচর  শিকারি পাখি। দৃষ্টিশক্তি অত্যন্ত তীক্ষ্ম, ডানা লম্বা ও শক্তিশালী; বাঁকা ঠোঁট, পালক ঢাকা ধারালো বাঁকা নখরসহ মজবুত পা এদের বৈশিষ্ট্য। এসব  পাখি (বাজ,  হ্যারিয়ার, পশ্চিম গোলার্ধের  শকুন ইত্যাদি) Ciconiiformes বর্গের Accipitridae গোত্রভুক্ত। দুর্দান্ত শিকারি, উঁচুতে চক্কর দেওয়ার সময় বা গাছের ডালে বসে থেকে শিকার দেখে এরা ছোঁ মেরে শিকার ধরে। সাম্রাজ্য, সামরিক শৌর্য ও সাহসের প্রতীক হিসেবে ঈগল প্রাচীনকাল থেকেই ব্যবহূত হয়ে আসছে। এগুলির প্রতিমূর্তি গ্রিক ও রোমান ধ্বংসাবশেষ, মুদ্রা ও পদকে পাওয়া গেছে। বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর প্রতীক ঈগল। এক জাতের ঈগল আমেরিকার রাষ্ট্রীয় প্রতীক।

বাম থেকে: পালাসি কুরাঈগল, তিলা নাগঈগল, মেটেমাথা কুরাঈগল, ধলাপেট সিন্ধঈগল
বাম থেকে: খাটোআঙুল সাপঈগল, ধলালেজ ঈগল, এশীয় শাহিঈগল, তামাটে ঈগল
বাম থেকে: ঝুটিয়াল শিকরে, বড় গুটিঈগল, বনেলি ঈগল, লালপেট ঈগল

পৃথিবীতে ঈগল প্রজাতির সংখ্যা প্রায় ৩০। বাংলাদেশের ১৫ প্রজাতির মধ্যে ৬টি স্থায়ী ও ৯টি পরিযায়ী। স্থানীয় প্রজাতির ঈগলগুলি হচ্ছে Short-toed Snake Eagle (Circaetus gallicus) বা হ্রস্ব-নখ ঈগল, White-bellied Sea Eagle (Haliaeetus leucogaster) বা সাদা ঈগল/সিন্ধু ঈগল, Pallas’s Fish Eagle (Haliaeetus leucoryphus) বা বওলা/কুরাল, Grey-headed Fish Eagle (Ichthyophaga ichthyaetus) বা মাছমুরাল/উকশ, Crested Serpent Eagle (Spilornis cheela) বা তিলাবাজ/সাপখেকো বাজ, Changeable Hawk Eagle (Spizaetus cirrhatus) বা বাজ। পরিযায়ী প্রজাতির ঈগলগুলি হচ্ছে Greater Spotted Eagle (Aquila clanga) বা চিত্রা ঈগল, Imperial Eagle (Aquila heliaca) বা রাজ ঈগল, Steppe Eagle (Aquila nipalensis) বা প্রান্তর ঈগল, Lesser Spotted Eagle (Aquila pomarina) বা বুটি ঈগল, Eastern Steppe Eagle (Aquila rapax) বা খয়েরি ঈগল, Bonelli’s Eagle (Hieraaetus fasciatus), Rufous-bellied Eagle (Hieraaetus kienerii), Booted Eagle (Hieraaetus pennatus) বা কাটুয়া চিল এবং Black Eagle (Ictinaetus malayensis) বা কালো ঈগল। বিশ্বব্যাপী বিপন্ন Pallas’s Fish Eagle (কুড়া) বাংলাদেশেও অতিবিপন্ন। পরিযায়ীদের মধ্যে চিত্রা ঈগল (Greater Spotted Eagle) ও ইম্পিরিয়াল ঈগল পৃথিবীর সর্বত্র বিপন্ন। [মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম]

আরও দেখুন বাজপাখি, শকুন