আহমদ, সুলতানউদ্দিন১


আহমদ, সুলতানউদ্দিন১ (১৯০২-১৯৭৭)  আইনজীবি, কূটনীতিক, পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর। ১৯০২ সালে তিনি নরসিংদী জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। সুলতানউদ্দিন আহমদ ১৯২২ সালে স্নাতক ডিগ্রি এবং ঢাকা বিশ্বদ্যিালয় থেকে ১৯২৪ ও ১৯২৬ সালে যথাক্রমে এম.এ ও বি.এল ডিগ্রি লাভ করেন।

সুলতানউদ্দিন ১৯২৭ সালে ঢাকায় আইন ব্যবসা শুরু করেন। তিনি খন্ডকালীন লেকচারার হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগে ১০ বছর কাজ করেন। তিনি পূর্ব পাকিস্তান সরকারের পাবলিক প্রসিকিউটর ও ডেপুটি লিগ্যাল রিমেমব্রান্সার নিযুক্ত হন। তিনি কিছুদিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত ভাইস-চ্যান্সেলর এবং কয়েক বছর অবৈতনিক ট্রেজারার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য এবং পাকিস্তানের আন্ত-বিশ্ববিদ্যালয় বোর্ডের সদস্য (১৯৪৮-১৯৫২) ছিলেন। প্রদেশের সমবায় আন্দোলনের সাথে তিনি সক্রিয়ভাবে জড়িত ছিলেন। তিনি ঢাকা সেন্ট্রাল কো-অপারেটিভ ব্যাংকের একজন পরিচালক ও ডেপুটি চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি চার বছর পাকিস্তান স্টেট ব্যাংকের পরিচালক ছিলেন।

মুসলিম লীগের সহ-সম্পাদক হিসেবে তাঁর রাজনৈতিক জীবন শুরু হয়। তিনি অবিভক্ত বাংলার আইন পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন (১৯৪৩-১৯৪৭)। দেশ বিভাগের পর তিনি বার্মায় (বর্তমান মিয়ানমার) পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত নিযুক্ত হন এবং একই সাথে তাঁকে থাইল্যান্ডে রাষ্ট্রদূত নিয়োগ করা হয়। ১৯৫৫ সালের এপ্রিল মাসে তাঁকে গণপ্রজাতন্ত্রী চীনে পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত নিয়োগ করা হয়।  ১৯৫৮ সালের ২৬ এপ্রিল পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর নিযুক্ত হওয়ার পূর্ব পর্যন্ত তিনি ওই পদে বহাল ছিলেন। ১৯৫৮ সালের ৩ মে তিনি গভর্নর হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন।

সুলতানউদ্দিন আহমদ ১৯৫৯ সালের জানুয়ারি থেকে ১৯৬৪ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত ইন্দোনেশিয়ায় পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত ছিলেন। সুলতানউদ্দিন জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে পাকিস্তান প্রতিনিধি দলের সদস্য ছিলেন (১৯৬৪-১৯৬৫)।

পাকিস্তানে সামরিক আইন জারির পর সুলতানউদ্দিন আহমদকে ১৯৫৮ সালের ১০ অক্টোবর পূর্ব   পাকিস্তানের গভর্নর পদ থেকে অপসারণ করা হয়।

সুলতানউদ্দিন আহমদ ১৯৭৭ সালের ৮ এপ্রিল মৃত্যুবরণ করেন। [আবু জাফর]