আহমদ, মফিজউদ্দীন


আহমদ, মফিজউদ্দীন  (১৮৯১-১৯৭৯)  রাজনীতিবিদ, সমাজকর্মী। তিনি কুমিল্লা জেলার দেবীদ্বার থানাধীন বড়শালঘর গ্রামে ১৮৯১ সালে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯১৯ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় এর অধীনে ইংরেজিতে অর্নাসসহ বি.এ পাস করেন। অতঃপর তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বি.এল পাস করে কুমিল্লা জেলা বারে ওকালতি শুরু করেন। এ সময় তিনি  .কে ফজলুল হক, আবুল কাশেম প্রমুখ ব্যক্তিত্বের সংস্পর্শে আসেন। এই সুবাদে তাঁর রাজনৈতিক জীবনেরও সূচনা হয়। ১৯৩৩ সালের প্রথমার্ধে মুসলিম লীগএ যোগদান করে তিনি সক্রিয় রাজনীতি শুরু করেন এবং ত্রিপুরা জেলা মুসলিম লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯৩৮ সালে তিনি বঙ্গীয় আইন পরিষদের সদস্য এবং ১৯৪০ সালে শিক্ষা বিষয়ক পার্লামেন্টারি সেক্রেটারি নিযুক্ত হন। ১৯৪৬ সালে তিনি পুনরায় বঙ্গীয় আইন পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন এবং পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার পর পূর্ব পাকিস্তানের ত্রাণ, পুনর্বাসন, রেজিস্ট্রেশন ও কারাগার বিষয়ক মন্ত্রীর দায়িত্ব লাভ করেন। ১৯৫৪ সালে তিনি পাকিস্তান পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য নিযুক্ত হন। ১৯৬২ থেকে ১৯৬৫ সাল পর্যন্ত তিনি পূর্ব পাকিস্তানের শিক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।

সামাজিক অবদানের জন্য মফিজউদ্দীন আহমদ ব্রিটিশ আমলে খান সাহেব ও খান বাহাদুর এবং পাকিস্তান আমলে সিতারা-ই-কায়েদে আজম খেতাব লাভ করেন। তিনি ১৯৭৯ সালে ইন্তেকাল করেন।  [আলি নওয়াজ]