আল-বদর


আল-বদর ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় পূর্ব পাকিস্তানে অবস্থানরত পাকিস্তানি বাহিনীকে সহায়তা দান এবং তৎকালীন পাকিস্তান রাষ্ট্র অক্ষুণ্ণ রাখার পক্ষে জনমত গড়ে তোলার কাজে নিয়োজিত আধা-সামরিক বাহিনী। পাকিস্তান সামরিক বাহিনীর পূর্বাঞ্চলীয় প্রধান জেনারেল নিয়াজীর পৃষ্ঠপোষকতায় সেপ্টেম্বর মাসে আল-বদর বাহিনী আত্মপ্রকাশ করে। ইসলামের ইতিহাসের বদর যুদ্ধকে আদর্শ করে এ বাহিনী গঠিত হয়। রাজাকার বাহিনী গঠনের অব্যবহিত পরেই প্রতিষ্ঠিত হয় আল-বদর বাহিনী। আল-বদর বাহিনীকে মাঠ পর্যায়ে নিরাপত্তা প্রদানের দায়িত্ব ছিল পাকিস্তানি সামরিক বাহিনীর। রাজাকারদের কার্যকলাপের সঙ্গে খানিকটা পার্থক্য ছিল আল-বদর বাহিনীর। রাজাকাররা সামগ্রিকভাবে মুক্তিযোদ্ধাদের বিরোধিতা করেছে। কিন্তু আল-বদর বাহিনীর লক্ষ্য ছিল সন্ত্রাস ও রাজনৈতিক হত্যার মাধ্যমে নিরীহ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করা। পাকিস্তান বিরোধী বুদ্ধিজীবীদের নিশ্চিহ্ন করা ছিল তাদের অন্যতম লক্ষ্য। আল-বদররা ঢাকার রায়েরবাজার বধ্যভূমিতে বুদ্ধিজীবীদের হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ছিল। ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর পাক-বাহিনীর আত্মসমর্পণের সঙ্গে সঙ্গে আল-বদর বাহিনীর বিলুপ্তি ঘটে।  [মুনতাসীর মামুন]