আলম, এ.বি.এম নূরুল


আলম, এ.বি.এম নূরুল (১৯২৯-১৯৭১)  চিকিৎসক, মুক্তিযুদ্ধে শহীদ। পুরো নাম আবু বারেক মোহাম্মাদ নূরুল আলম। দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ উপজেলার ধনতলা গ্রামে ১৯২৯ সালে তাঁর জন্ম। পিতা মৌলানা মজিরুদ্দিন আহমেদ। নূরুল আলম ১৯৬১ সালে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ থেকে এমবিবিএস ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি সান্তাহার রেলওয়ে হাসপাতালে সহকারি সার্জন হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে অধ্যয়নকালে নূরুল আলম ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেন। এ সময় ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করার কারণে তিনি পুলিশি নির্যাতনের শিকার হন। নওগাঁ রেলওয়ে হাসপাতালে চাকুরিরত অবস্থায় তিনি মুক্তিযুদ্ধে সম্পৃক্ত হন। সান্তাহারে বাঙালি-অবাঙালি দাঙ্গায় তিনি আহতদের চিকিৎসাসেবা প্রদান করেন। ২৬ মার্চ সকালে অবাঙালিরা পাকিস্তানি সৈন্যদের সহায়তায় বাঙালিদের আক্রমণ করলে নূরুল আলম সপরিবারে সান্তাহার রেলওয়ে হাসপাতালে আশ্রয় নেন। সেখান থেকে তাঁরা প্রথম নওগাঁর হাইসাবাড়ি গ্রামে এবং পরে রাজশাহীর শাহবাজপুর গ্রামে আশ্রয় নেন। সেখান থেকে তিনি ভারতে যাওয়ার পরিকল্পনা করে রাজশাহী শহরে আসেন। মুক্তিযোদ্ধাদের সহযোগিতার অভিযোগে শহরের এক ঔষধের দোকান থেকে পুলিশ তাঁকে ধরে নিয়ে যায়। তাঁকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের জোহা হলে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর ক্যাম্পে আটক রাখা হয়। সেখানে ২০ নভেম্বর রাতে তাঁকে গুলি করে হত্যা করা হয়।  [বায়জীদ খুরশীদ রিয়াজ]